Skip to content

এবার থেকে এই নম্বরে ফোন করে বুক করে নিতে পারবেন করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার দিনক্ষণ

    বর্তমানে দেশে টিকাকরনের প্রক্রিয়ার কাজ দ্রুত করা হয়েছে। এখন থেকে আপনি একটি ফোন কল এর মাধ্যমেই ভ্যাকসিন এর দিনক্ষণ বুক করতে পারবেন। অর্থাৎ আগে যে Cowin এ রেজিস্টার করে টিকা বুক করতে হতো, এখন তা আর করতে হবে না। শুক্রবার জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের প্রধান R S Sarma জানিয়েছেন, করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য গ্রামের মানুষকে একটি ফোন নম্বর দেওয়া হচ্ছে। ফোন নম্বরে ফোন করলে এখন থেকে টিকা নিতে পারবে সাধারণ মানুষ।

    ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য সরকার যে হেল্পলাইন নম্বর টি চালু করেছে সেটি হল 1075। এই নাম্বারে কল করলেই খুব সহজেই ভ্যাকসিনের অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেওয়া যাবে। এই প্রক্রিয়াটি যাতে সাধারণ মানুষ আরো সহজে বুঝতে পারে সেজন্য জেলা অফিসার ,জেলা কালেক্টর এছাড়া প্রাথমিক স্বাস্থ্য দপ্তর কেন্দ্রের কর্মীরা সচেতনতা তৈরি করতে গ্রাউন্ড লেভেলে কাজ করে চলেছেন। এর ফলে সাধারণ মানুষের করোনা টিকা বুকিং অথবা রেজিস্ট্রেশন করতে কোন সমস্যা হবে না।

    ভ্যাকসিন

    করোনা টিকা

    এখন প্রশ্ন হচ্ছে কিভাবে ফোন কলের মাধ্যমে ভ্যাকসিন বুক করবেন?

    45 বছরের উপরের বয়সের জনগোষ্ঠীর one in রেজিস্ট্রেশন এবং তাদের ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে এটা এই ব্যবস্থার অন্তর্ভুক্তির যথেষ্ট প্রমাণ। জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের প্রধান আরও জানিয়েছেন, ভ্যাকসিনের সরবরাহ কম থাকায় 18 থেকে 44 বছর বয়সীদের ভ্যাকসিন বুকিং এ কিছু সমস্যা দেখা যাচ্ছে। তবে এই সমস্যা সাময়িক। কিছুদিনের মধ্যে এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। তিনি বলেন টিকাদান ড্রাইভের ব্যবস্থাটি সম্পূর্ণভাবে স্বচ্ছ। স্বচ্ছতা জনগণকে আত্মবিশ্বাস দেয়, এই ব্যবস্থায় VIP হোক অথবা সাধারণ নাগরিক সবাইকে সমান অধিকারে ভ্যাকসিন বণ্টন করা হচ্ছে।

    করোনার ভ্যাকসিন

    ভারতে Covid 19 এর প্রথম পর্যায়ে টিকাকরণ শুরু হয়েছিল 16 ই জানুয়ারি 2021 থেকে। এবং দ্বিতীয় পর্যায়ের টিকাকরণ শুরু হয় 1 ই মার্চ 2021 থেকে। এই সময় ভারতের 60 বছরের বেশি বয়স্ক মানুষদের এবং 45 থেকে 59 বছর বয়সীদের টিকা নেওয়ার অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। 1 এপ্রিল 2021 থেকে 45 বছরের বেশি বয়সী মানুষদের টিকা দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। এবং সম্প্রতি জানানো হয়েছে 21 মে থেকে 18 বছরের উপরের বয়সী ব্যক্তিদের টিকা করন শুরু হয়েছে। অর্থাৎ দেখা যাচ্ছে অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে ভারতে টিকাকরণের কাজ দ্রুত হারে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।