Nano EV: বিশ্বের সব থেকে সস্তা ইলেকট্রিক গাড়ি এক চার্জেই চলবে 300 কিলোমিটার, দাম মাত্র

Loading...

ভারতের জনগণের গাড়ি হিসেবে বিপুল প্রচারের মাধ্যমে 2008 সালে বাজারে এসেছিল টাটা ন্যানো(Tata nano)। ভারতের বাজারে এই চার চাকা গাড়ি এর ক্রেতাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়। কিন্তু ক্রেতাদের মধ্যে সেই রকম প্রভাব ফেলতে পারেনি এই টাটা ন্যানো গাড়ি টি। এর ফলে কোম্পানি টাটা ন্যানো গাড়ি উৎপাদন বন্ধ করে দেয়। কিন্তু ন্যানো গাড়ি ফের ঘুরে দাঁড়াতে চলেছেন। তবে এটি সম্পূর্ণ নতুন ইলেকট্রিক ভার্সনে আসতে চলেছে। তবে টাটা সংস্থা নয়! খুব শীঘ্রই চিনা মোটর প্রস্তুতকারী সংস্থা Wuling Hong Guang, Nano EV নামে একটি গাড়ি বাজারে আনার কথা জানিয়েছে।

চিনে Tianjin তে International Auto show,2021 অনুষ্ঠানে এই গাড়ির পর্দা সরানো হয়েছে। এটি বিশ্বের সবচেয়ে কমদামি চার চাকার ইলেকট্রিক গাড়ি রূপে সামনে আসতে চলেছে।

Loading...

• Wuling Nano EV গাড়িটির কি কি বৈশিষ্ট্য থাকবে।

Loading...

ওই চিনা সংস্থা Baojun E200 গাড়ির বিকল্প হিসেবে এই Wuling Nano EV গাড়িটি প্রস্তুত করছে। এই ইলেকট্রিক গাড়িটি 2-seater হিসেবে তৈরি করা হচ্ছে। অর্থাৎ সামনে চালকসহ আর একজন বসার জায়গা করা হচ্ছে। গাড়িটির টার্নিং রেডিয়াস 4 মিটার এর থেকেও কম হবে। এছাড়া দাবি করা হচ্ছে এই গাড়িটির টাটা ন্যানো গাড়ির থেকেও ছোটো হতে চলেছে। Wuling Nano EV লম্বায় 2,497 mm, চওড়ায় 1,526 mm এবং উচ্চতায় 1,616 mm হতে পারে। সাথে 1,600 mm এর wheelbase থাকতে পারে বলে জানা যাচ্ছে।

• Wuling Nano EV গাড়িটির ইঞ্জিন সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

এই গাড়িতে 33PS ক্ষমতাসম্পন্ন ইলেকট্রিক মোটর থাকবে যা সর্বোচ্চ 85 NM টর্ক উৎপাদন করতে সক্ষম। এছাড়াও গাড়িটির সর্বোচ্চ গতিবেগ 100km/hour হবে বলে জানানো হচ্ছে।

Loading...

Nano ev

Loading...

• Wuling Nano EV গাড়িটির ব্যাটারি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

Nano EV গাড়িটি তে IP67 শংসাপত্র পাওয়া 28 kwh এর একটি লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি থাকতে পারে। এছাড়াও সংস্থা দাবি করছে একবার ফুল চার্জে এই ইলেকট্রিক গাড়িটি 305 Km পথ চলতে পারবে।যা 220V সকেট এর ফুল চার্জ হতে 13.5 ঘন্টা সময় নেবে। তবে গাড়িটি একটি 6.6 কিলোওয়াট এসি চার্জার বিকল্পের সাথে পাওয়া যেতে পারে, যার দ্বারা 4.5 ঘণ্টাতেই সম্পূর্ণ চার্জ করা যাবে।

• এবার এই গাড়িটির সম্পূর্ণ ফিচারস এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

চিনা সংস্থাটি Wuling Nano EV গাড়িটিতে ফিচারস দিতে কোন কমতি ছাড়েনি। এই গাড়ি Electronic Stability Control (ESC) সিস্টেম এর উপর নির্ভর করে তৈরি করা হচ্ছে। গাড়িটিতে রয়েছে ABS ফ্যাসেলিটি এর ব্রেকিং সিস্টেম। এছাড়া ইলেকট্রনিক পার্কিং ব্রেক(electronic parking brake), আইসোফিক্স চাইল্ড সিট মাউন্ট(isofix child seat mount), স্পিড পেডেস্ট্রিয়ান ওয়ার্নিং(speed pedestrian warning), রিভার্সিং ক্যামেরা(reversing camera),

Electric car

টায়ার প্রেসার মনিটরিং সিস্টেম(tyre pressure monitoring system), এয়ার কন্ডিশনিং(air conditioning), কিলেস এন্ট্রি সিস্টেম(keyless entry system), টেলিমেটিক্স সিস্টেম(telematics system), এলইডি হেডলাইট(LED headlight) এবং 7 ইঞ্চির এর একটি ডিজিটাল স্ক্রিন(digital screen) থাকবে বলে সংস্থা জানাচ্ছে। অর্থাৎ বোঝাই যাচ্ছে গাড়িটিতে নানা আকর্ষণীয় ফিচার থাকছে।

• বাজারে Wuling Nano EV এর দাম কত রাখা হতে পারে।

CarNewsChina-র রিপোর্ট অনুযায়ী, গাড়িটির দাম হতে পারে 20,000 Yuan। ভারতীয় টাকায় এর দাম দাঁড়াচ্ছে 2.30 লাখ টাকা। অর্থাৎ ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় গাড়ি Maruti Suzuki Alto গাড়ির থেকেও কম দাম হতে চলেছে।