জাঁকিয়ে পড়তে চলেছে ঠান্ডা, হু হু করে নামবে তাপমাত্রার পারদ! জানুন পুজোয় কি রকম থাকবে আবহাওয়া

সকালে আকাশ পরিষ্কার। ভোরে শীতের অনুভূতি। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছেন দক্ষিণবঙ্গের আবহওয়া কিছুটা নামবে। কালীপূজো ও ভাইফোঁটাতে আবহাওয়া সম্পর্কে আবহাওয়া দপ্তর পূর্বাভাস দিয়েছে। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছেন এদিন সকাল থেকে অর্থাৎ ৩১শে অক্টোবর রবিবার সকালের উত্তরবঙ্গের সব জেলাগুলিতে আবহাওয়া শুষ্ক থাকবে। কোথাও বৃষ্টিপাত হাওয়ার পূর্বাভাস নেই।

Winter

পরবর্তী ২৪ ঘন্টা অর্থাৎ ১ই নভেম্বর সোমবার সকাল থেকে দার্জিলিং এবং কালিম্পং সহ পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে বজ্রবিদ্যুৎসহ হালকা বৃষ্টিপাত হবে বলে মনে করেছেন আবহাওয়া দপ্তর। তবে অন্যান্য জেলাগুলি শুষ্ক থাকবে বলে জানিয়েছেন। তবে ভোরের দিকে হালকা কুয়াশার শহিত শীতের অনুভূতি থাকবে। আগামী কয়েকদিন আবহাওয়ার কোনো পরিবর্তন হবে না বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া দপ্তর।

কলকাতার আবহাওয়া (weather)

কলকাতা এবং তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় পরবর্তী ২৪ ঘন্টায় আকাশ অংশত মেঘলা থাকবে। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩২ ডিগ্রি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৪ ডিগ্রী হতে পারে। তাপমাত্রা কিছুটা হলেও নামবে। বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া দপ্তর।

দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া (weather)

এদিন অর্থাৎ পরবর্তী ৪৮ ঘন্টায় দক্ষিণবঙ্গের কোন অঞ্চলে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা নেই, আবহাওয়া শুষ্ক থাকবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া দপ্তর। রাতের দিকে কিছুটা তাপমাত্রা কমবে এবং ভোরের দিকে কুয়াশা সহিত হালকা শীতের অনুভূতি হবে। আগামী ২৪ ঘন্টা অর্থাৎ ৩১শে অক্টোবর থেকে দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া ধীরে ধীরে কমতে থাকবে, ৪/৫ই নভেম্বর থেকে একটু বেশি কমবে। ৪ই নভেম্বর কালীপুজো এবং ৬ই নভেম্বর ভাইফোঁটা তাপমাত্রা কমবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া দপ্তর।

উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা (ডিগ্রি সেলসিয়াস)

Weather

ব্র্যাকেটে আগের দিনের তাপমাত্রা

কোচবিহার (১৭.৯)
দার্জিলিং (১০.৪)
দিঘা (২৩.৫)
কলকাতা (২৩.৭)
মালদহ (২২.৯)
পানাগড় (২০)
আসানসোল (২০.৫)
বাঁকুড়া (২০.৯)
ব্যারাকপুর (২৪.২)
বহরমপুর (২২.৪)
বর্ধমান (২২)
ক্যানিং (২৪.৬)
পুরুলিয়া (১৯.৫)
শিলিগুড়ি (১৮)
বালুরঘাট (২২.৯)
শ্রীনিকেতন (১৯.৪)

Winter

নিম্নচাপের জেরে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস

আবহাওয়া দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এবং পার্শ্ববর্তী এলাকায় তামিলনাড়ু উপকূলের উপরে ঘূর্ণিবাতসহ নিম্নচাপ অবস্থান করছেন। যা পশ্চিমে সরে আসবে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে। ঘূর্ণিবর্তের ঢাকা থেকে পূর্বালী হাওয়া একটি অক্ষরেখা উত্তরে অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূল পর্যন্ত বিস্তার লাভ করেছে। এর ফলে পন্ডিচেরি, কেরল, তামিলনাড়ু, উপকূল অন্ধপ্রদেশে ভারী বৃষ্টিপাতে আশঙ্কা রয়েছে। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছেন, পূর্ব ভারত, উত্তর-পূর্ব ভারত, উত্তর-পশ্চিম ভারত এবং মধ্যভারতের আবহাওয়া শুষ্ক থাকবে।