Skip to content

রহস্যময়ী ভারতের এই উপত্যকা, যেখানে যেতেই বদলে যায় মোবাইলের সময় ও তারিখ, কাঁপতে শুরু করে রাস্তার লাইট

    রাঁচি-টাটা এনএইচ-এ অবস্থিত তাইমারা উপত্যকা আজকাল মিডিয়ার শিরোনামে রয়েছে। তাইমারা উপত্যকা দিয়ে যাওয়ার সময় অনেকেরই মোবাইলের সময় বদলে যাওয়ার অভিজ্ঞতা হয়েছে। এ নিয়ে মানুষের মধ্যে কৌতূহলের পরিবেশ বিরাজ করছে এবং বিশেষজ্ঞরাও এ নিয়ে গবেষণা শুরু করেছেন। তাইমারা উপত্যকা দিয়ে যাওয়া অনেকেরই নানা অভিজ্ঞতা হয়েছে।

    Taimara ghati

    কেউ বলেন যে গাড়ির গতি ভিন্ন এবং স্পিডোমিটার অন্য কিছু বলে। মাঝে মাঝে হঠাৎ গাড়ির ক্লাচ প্লেট জ্যাম হয়ে গাড়ি থেমে যায়। তারপর কিছুক্ষণ পর গাড়ি স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্টার্ট দেয়। মনে করা হচ্ছে এই ক্ষেত্রটি চৌম্বক এবং মোবাইল সহ অনেক ইলেকট্রনিক সিস্টেম এই ক্ষেত্রে প্রভাবিত। রাঁচি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগের প্রভাষক ডাঃ নীতীশ প্রিয়দর্শী বলেছেন যে তিনিও এমন অদ্ভুত ঘটনার কথা জানতে পেরেছেন।

    তিনি বলেছিলেন যে একদিন তাঁর এক বন্ধু এমন একটি ঘটনার তথ্য দিতে গিয়ে বলেছিলেন যে তিনি রামপুর থেকে রাঁচি টাটা রোডের বুন্দু রোডে ফোন কল পেয়েছিলেন, তিনি গাড়ি চালাচ্ছিলেন, তাই ফোন ধরতে পারেননি, এই ঘটনা ঘটে11 জানুয়ারী 2022। তার বক্তব্য, যখন আমি আবার কল করার জন্য ফোনটি চালু করলাম, আমি তারিখটি দেখে হতবাক হয়ে গেলাম, যে তারিখটি ছিল 27 আগস্ট, 2023 এবং সময়টি ছিল বিকাল 3.45 মিনিট। অর্থাৎ দেড় বছর আগে থেকে এই ডাক এসেছে। এরকম অনেক ঘটনা তার বিভিন্ন বন্ধুদের সাথেও ঘটেছে।

    Taimara ghati

    স্ট্রিট লাইট সব সময় কাঁপছে…

    প্রিয়দর্শী বলেন, এটাও জানা গেছে যে, যেখানে এই ঘটনা ঘটেছে সেই জায়গার স্ট্রিট লাইট সব সময় কাঁপত, অথচ এসব লোকের গাড়ির গতি খুব বেশি ছিল না। তারা বলে যে এমন কোন চৌম্বকীয় বিকিরণ আছে, যা মোবাইলকে প্রভাবিত করে নাকি এটা সময় ও সময়ের ব্যাপার? এটা এমনভাবেও বোঝা যায় যে, কেউ যখন নতুন কোনো জায়গায় যাবে, তখন তার মনে হবে যেন সে এই জায়গায় আগে এসেছে।

    অথবা যখন কেউ নতুন ব্যক্তির সাথে দেখা করে, তখন মনে হয় যে সে আগে ওই ব্যক্তির সাথে ইতিমধ্যেই দেখা করেছে। আজও কাল ও কালের রহস্য নিয়ে গবেষণা হচ্ছে। যাই হোক, বিভিন্ন সোশ্যাল ওয়েবসাইটে তাইমারা উপত্যকার রহস্য নিয়ে অনেক গল্প আছে। ডাঃ প্রিয়দর্শী লোকেদের ফোনে যে তারিখ পেয়েছেন তা লিখে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন এবং আগামী সময়ে কী হচ্ছে তার জন্য অপেক্ষা করতে পরামর্শ দিয়েছেন। এই বিষয়টি নিয়ে বিজ্ঞানীরা বর্তমানে গবেষণ করছেন।