Skip to content

এক সময় আর্জেন্টিনার আকাশে দাপিয়ে বেড়াতো এই দৈত্যাকার পাখিটি, প্রায় ৭০ কেজি ওজনের এই পাখিটি আজ কোথায়?

    img 20230113 094652

    আমরা প্রত্যেকেই জানি মানুষের জন্ম হওয়ার পূর্বে বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রাণী ছিল ডাইনোসর। তবে আপনারা কি জানেন কোটি কোটি বছর পূর্বে ‘দানব’ বাতাসে রাজত্ব করেছিল? প্রায় ৬০ মিলিয়ন বছর পূর্বে আর্জেন্টিনার আকাশে দাপিয়ে বেড়াতো একটি ‘রাক্ষস পাখি’। সেই পাখিকে দৈত্যাকার পাখি বলা হত কারণ তার ওজন ছিল ৭০ কেজি এবং ডানা ছিল ৭ মিটার লম্বা। এছাড়াও জানিয়ে রাখি, র্জেন্টভিস মাগ্নিফিসান্স (Argentavis magnificens) নামের এই পাখিটি প্রায় সেসনা ১৫২ হালকা বিমানের আকারের সমান ছিল।

    Argentavis magnificens

    বাতাসে উড়ে আসা সবচেয়ে বৃহৎ এই পাখিটিকে ভয়ংকর শিকারি পাখি বলা হত। এই পাখিটি আর্জেনটাভিস শিকারী পাখিদের একটি বিলুপ্তপ্রায় দলের সদস্য যাদেরকে প্রকৃত অর্থে ‘pteratorns’ অর্থাৎ ‘দানব পাখি’ বলা যেতে পারে।  এই পাখিগুলিকে বর্তমানে সারস পাখি কিংবা শকুনও বলা হয়। এত ভারী ওজন হওয়া সত্ত্বেও আর্জেন্তাভিস নামের এই পাখিটি আধুনিক পাখির সমস্ত বৈশিষ্ট্য ধারণ করে আকাশে উড়ে বেড়াত।

    Big Bird

    এত বিশাল ওজনের কারণ হল হালকা এবং ফাঁপা হাড় এবং শক্তিশালী তার দুটি ডানা। আপনারা জানলে হয়তো অবাক হবেন  আধুনিক পাখির তুলনায় আর্জেন্টাভিস এত বড়, তা বিশ্বের সবচেয়ে ভারী জীবন্ত পাখি গ্রেট কোরি বাস্টার্ডের থেকেও তিনগুণ বেশি ভারী।

    Giant Bird

    এছাড়াও জানলে বিস্মিত হবেন, আফ্রিকাতে জন্মানো কোরি পাখির ওজন ১৯ কেজি হলেও অ্যান্ডিয়ান শকুনের ওজন তার চেয়েও বেশি। এছাড়াও পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহত্তম ১৫০ কেজি ওজনের পাখি হলো উটপাখি। এই উটপাখি প্রায় তিন মিটার লম্বা এবং এর ডানা ২ মিটার পর্যন্ত বিস্তৃত। যদিও বাতাসে উটপাখি উড়তে পারেনা, তবে সেই পাখি দূর থেকে আর্জেন্তাভিসের সমান নয়।

    See also  ১৯৭১ সালে মসলা দোসা ও কফির দাম শুনলে হয়ে যাবেন অবাক, দেখুন সেই সময়ের একটি পুরনো বিলের ছবি!