ভুলবশত পেনকিলার এর বদলে এয়ারপড গিলে ফেললেন মহিলা, আর তারপর

সারাবিশ্বে আমাদের চারপাশে বিভিন্ন রকমের অদ্ভুত ঘটনা ঘটছে। অনেক সময় তা সোশ্যাল মিডিয়ার ওয়ালে উঠে আসে। অনেক সময় সেই সমস্ত খবর হাসির হয়, কখনো তা হয় অত্যন্ত ভয়ের, আবার কখনো কখনো তা বিস্ময়ের। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনই একটি খবর ভাইরাল হয়েছে যা একদিকে হাসির উদ্রেক করছে আবার অপর দিকে বিস্ময়ের। আমরা এখন টেকনলজি জালে জড়িত। গোটা বিশ্ব জুড়ে উন্নত আধুনিক প্রযুক্তি তার জাল বিস্তার করেছে। ফলে আমরা টেকনোলজির সাথে নিজেকে দিন দিন জড়িয়ে ফেলেছি।

airpod

সম্প্রতি ২৭ বছরের যুবতী কার্লি এমন এক বিস্ময়কর ঘটনা সৃষ্টি করেছে যার ফলে তিনি রাতারাতি ভাইরাল হয়ে গেছেন। তবে তিনি কোনো বিস্ময়কর আবিষ্কার করেননি। বরঞ্চ তিনি এমন একটি ঘটনা ঘটিয়েছেন যার ফলে তিনি রাতারাতি ভাইরাল হয়ে উঠেছেন। সম্প্রতি এই মহিলা একজন সক্রিয় ইলেকট্রনিক ডিভাইস গিলে ফেলেছেন । টিকটক ভিডিও অনুযায়ী তিনি ভুলবশত পেইনকিলার এর বদলে একটি এয়ারপড গিলে ফেলেছে। গিলে ফেলা এয়ারপড তার পেটের ভেতরেও সচল রয়েছে এবং কার্লি নিজেও সুস্থ আছেন।

এয়ারপড

কার্লি নিজেই তাঁর টিকটক ভিডিওতে বলেছেন তাঁর এক হাতে ছিল পেইনকিলার আর অন্য হাতে ছিল এয়ারপড। কিন্তু তিনি ঔষধ খাবেন মনে করে এয়ারপড গিলে ফেলেন । তখন তাঁর গলায় শক্ত মতো কিছু লাগে। তখন তিনি নিজের হাতের দিকে তাকিয়ে চমকে উঠেন। দেখেন বাম হাতে থাকা এয়ারপড নেই এবং অপরদিকে ডান হাতে থাকা পেইনকিলার তখনও হাতের মধ্যে রয়ে গেছে এবং তখনই তিনি বুঝতে পারিনি ভুল করে এয়ারপড গেলে ফেলেছেন। পরবর্তীকালে তিনি গলা থেকে এয়ারপড বার করবার বিভিন্ন রকম চেষ্টা করলেও এয়ারপড বেরোয় না।

তবে এখানেই চমকের শেষ হচ্ছেনা এয়ারপড গিলে ফেলার পর সেটি পেটের মধ্যে চলছিল। তিনি জানান কালির পেটের মধ্যে থেকেও এয়ারপড সচল থাকার পাশাপাশি নিজের কাজ চালু রাখে পরবর্তীকালে তিনি ফরগট দ্য ইয়ার ফটো সেটিং অন করে দার্শনিক সঙ্গে এয়ারপড কানেকশন অফ করে দেন। এয়ারপডটি তিনি ডিসকানেক্ট করব সাথে সাথে তার কাছে একটি নোটিফিকেশন আসে যে একটি অজানা আইপড তার দেহের কাছাকাছি রয়েছে।

তবে এজন্য তাকে ডাক্তারের কাছে শুনতে হয়নি তিনি নিজেই ডাইজেস্টিভ ট্রাক ব্যবহার করি এয়ারপড বেরিয়ে যাওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন পরবর্তীকালে এক্সরে করে দেখা যায় তার শরীরে আর কোনো এয়ারপড নেই এবং সে তার দেহ থেকে বেরিয়ে গেছে এটি অনুভব করতে পারে কার্লি।

তবে আপাতদৃষ্টিতে এটি একটি মজার বিষয় হলেও গিলে ফেলা এয়ারপড থেকে কার্লি শরীরে কোন বিপদ হতেও পারতো । কিন্তু আপাতত সুস্থ আছে কার্লি। তবে নেটিজেনরা এ ঘটনাটিকে উপর মিশপ্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে । অনেকে এটিকে নিছক মজার ছলে দেখেছে।

আবার অনেকে তির্যক মন্তব্য করেছে। একজন আবার মন্তব্য করেছেন যেখানে আমাদের ওষুধ খেতে গেলেই গলায় লাগে সেখানে একজন কিভাবে এয়ারপড গিলে ফেলল!! আবার অনেকেই মজা করে লিখেছেন পেটের মধ্যে থাকা এয়ারপড দিয়ে কার্লি গান শুনলে ভালো হতো । তবে আপাতত সমস্ত তির্যক মন্তব্য কে দূরে সরিয়ে রেখে সুস্থ এবং খোশমেজাজে আছে কার্লি।