Skip to content

পাল্টে গেলো তেরঙা উত্তোলনের নিয়ম, এবার থেকে মানতে হবে এই ৬ টি নিয়ম

    আমাদের মহান দেশ ভারতবর্ষ (India) প্রায় ২০০ বছর ব্রিটিশ শাসনের অধীনে ছিল। ১৯৪৭ সালের ১৫ ই আগস্ট আমাদের দেশ ব্রিটিশ শাসন থেকে মুক্তি পায় এবং স্বাধীনতা লাভ করে। আর কয়েকদিন পর গোটা দেশ ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবস পালন করবে। অর্থাৎ এই ৭৫ বছর উপলক্ষে ডায়মন্ড জুবিলী অনুষ্ঠিত হবে।

    দেশের স্বাধীনতার ৭৫ বছর স্মরণ করতে ভারত সরকার ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব'(Azadi Ka Amrit Mahotsav) কর্মসূচি নিয়েছেন। এই কর্মসূচি শুরু করা হয়েছিল ২০২১ এর ১২ই মার্চ থেকে এবং এটি শেষ হবে ২০২৩ সালের ১৫ই আগস্ট। এই কর্মসূচি অনুযায়ী ভারত সরকার এ বছর ‘হর ঘর তিরাঙ্গা অভিযান'(Har Ghar Tiranga Campaign) এর ডাক দিয়েছেন। এতে স্বাধীনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রী প্রতিটি বাড়িতে পতাকা উত্তোলনের ডাক দিয়েছেন। কিন্তু পতাকা উত্তোলনে অর্থাৎ ফ্লাগ কোডে কিছু নিয়ম পরিবর্তন করা হয়েছে এবং কিভাবে আপনি পতাকা উত্তোলন করবেন তা আপনার জেনে নেওয়া দরকার। আসুন তা জেনে নেওয়া যায়।

    Indian flag

    • ফ্লাগ কোড অফ ইন্ডিয়া এর নিয়ম পরিবর্তন।

    ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলনের বেশ কিছু নিয়ম রয়েছে এবং সেই সমস্ত নিয়ম গুলি লিপিবদ্ধ আছে ফ্ল্যাগ কোড অফ ইন্ডিয়া'(Flag Code Of India) তে। আজাদি কা অমৃত মহোৎসব কর্মসূচি এর আওতায় ‘হর ঘর তিরাঙ্গা অভিযান’ এ প্রধানমন্ত্রী চলতি সপ্তাহের ফ্ল্যাগ কোড এ কিছু পরিবর্তন করেছেন। ফ্ল্যাগ কোড অফ ইন্ডিয়া ২০২২-এর দ্বিতীয় ভাগের ২.২ অনুচ্ছেদের ১১ ধারা অনুযায়ী, ভারতের নাগরিক এবার বাড়িতে বা বাড়ির বাইরে যে কোন সময় অর্থাৎ দিন অথবা রাত তিনি পতাকা তুলতে পারবেন। পতাকার আকৃতি হবে আয়তাকার। তবে পতাকা ছেড়া হলে চলবে না। এছাড়াও পতাকার যাতে কোনোরকম অবমাননা না হয় সেদিকে নজর রাখতে হবে।

    • আগে ফ্ল্যাগ কোড এর নিয়ম কি ছিল?

    পূর্বে ফ্ল্যাগ কোড অফ ইন্ডিয়া এর নিয়ম অনুযায়ী ভারতীয় নাগরিক শুধুমাত্র সূর্যোদয়ের পর এবং সূর্যাস্তের আগে পর্যন্ত পতাকা উত্তোলন করতে পারতো। সূর্যাস্তের সাথে সাথে পতাকা নামিয়ে নেওয়া হতো। তবে বর্তমানে নিয়ম পরিবর্তন হলো।তার সাথে আগে শুধুমাত্র মেশিনে ও পলিয়েস্টারের তৈরি জাতীয় পতাকা উত্তোলন করার অনুমতি ছিল। সেই নিয়মে পরিবর্তন করে এবার হাতে বা মেশিনে তৈরি তুলো, পলিয়েস্টার, খাদির তৈরি জাতীয় পতাকা উত্তোলন করার অনুমতি দেওয়া হলো।

    • কেন্দ্র সরকারের ‘হর ঘর তিরাঙ্গা’ অভিযান।’

    এই বছর ভারত ও ভারতীয় নাগরিক ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবস পালন করবে। দেশের প্রধানমন্ত্রী আজাদী কা অমৃত মহোৎসব কর্মসূচি অনুযায়ী হর ঘর তিরাঙ্গা’ অভিযানে দেশের সকল নাগরিককে পতাকা উত্তোলনের জন্য ডাক দিয়েছেন। এই অভিযানের মূল উদ্দেশ্য এসে নাগরিক ও যুব সম্প্রদায় কে জাতীয়তাবোধে উদ্বুদ্ধ করা। এবছর প্রায় ২০ কোটি বাড়িতে পতাকা উত্তোলন করা হবে এই কর্মসূচির আওতায়।

    • ফ্ল্যাগ কোড অফ ইন্ডিয়া অনুযায়ী জাতীয় পতাকা উত্তোলনের নিয়ম ও বিধিনিষেধ।

    1. জাতীয় পতাকা কখনোই মাটিতে ফেলে রাখা উচিত নয়। এতে জাতীয় পতাকার অপমান করা হয়।
    2. জাতীয় পতাকার মধ্যে কোন দাগ বা অক্ষর লেখা উচিত নয়।
    3. ভারতের জাতীয় পতাকা তৈরি হতে হবে হাতে কাটা এবং বোনা তুলো, সিল্ক বা খাদি দিয়ে।
    4. ফ্ল্যাগ কোর্ড অফ ইন্ডিয়া তে জাতীয় পতাকার যে মডেল দেয়া আছে তার বাইরে পতাকার বিকৃতি ঘটিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা নিষিদ্ধ ।
    5. পতাকা বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করা যাবে না।
    6. জাতীয় পতাকা কখনোই পোশাক বা ইউনিফর্ম হিসেবে ব্যবহার করা উচিত নয়।

    India

    • আমাদের দেশের জাতীয় পতাকার ডিজাইনার পিঙ্গালি ভেঙ্কাইয়া।

    ১৯৪৭ সালের ১৫ ই আগস্ট এর আগে ২২ শে জুলাই অর্থাৎ স্বাধীনতার কিছুদিন আগে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছিল। The Emblem And Name Act, 1950 সালে পতাকার ব্যবহার ও উত্তলনের জন্য একটি আইন তৈরি করা হয়েছিল। সে সময় ভারতের রাষ্ট্রপতি ছিলেন ডঃ রাজেন্দ্র প্রসাদ(Dr Rajendra Prasad)। তাঁর নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয় এবং ওই কমিটির সুপারিশে ‘তেরাঙ্গা’কে দেশের জাতীয় পতাকা হিসেবে গ্রহণ করা হয়।

    আজ আমরা যে পতাকা দেখছি সেই পতাকা ডিজাইন করেছিলেন স্বাধীনতা সংগ্রামী তথা জাতীয় কংগ্রেসের সদস্য পিঙ্গালি ভেঙ্কাইয়া(pingali venkayya)। ভারতের জাতীয় পতাকার প্রতিটি রঙের এক একটি অর্থ রয়েছে। জাতীয় পতাকায় তিনটি রং রয়েছে গেরুয়া সাদা সবুজ। গেরুয়া সাহস এবং ত্যাগের প্রতীক। সাদা রঙটি শান্তি এবং সত্যের প্রতীক। সবুজ সমৃদ্ধির প্রতীক । সাদা রঙের মাঝে রয়েছে অশোক চক্র। সেই অশোক চক্রের ২৪ টি স্পোক, যেটি ধর্মচক্রের প্রতীক।