এবার বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে যাবে রেশন, ‘দুয়ারে রেশন’ নিয়ে বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

Loading...

গোটা রাজ্যে জোরকদমে রেশন কার্ডের সাথে আধার কার্ড সংযুক্তকরন প্রক্রিয়া চলছে। কারণ সমস্ত দেশে লাগু হতে চলেছে ‘এক দেশ এক রেশন কার্ড’ প্রকল্প। অন্যদিকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভোটের আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে রাজ্যে তিনি ‘দুয়ারের রেশন’ শুরু করবেন। অর্থাৎ রাজ্যের মানুষ এর বাড়িতে গিয়ে গিয়ে রেশন সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হবে। আগামী 15 সেপ্টেম্বরের ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প(duare ration scheme) পরীক্ষামূলক ভাবে শুরু করা হবে।

রাজ্য খাদ্য দপ্তর ইতিমধ্যে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। রাজ্যের খাদ্য দপ্তর প্রতিটি জেলাতে গাইডলাইনস পাঠিয়ে দিয়েছে। এই গাইডলাইনস এ প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হয়েছে। নিম্নে একটা একটি করে গাইডলাইনস আলোচনা করা হলো।

Loading...

1• নিজ নিজ এলাকায় রেশন ডিলার রা উপভোক্তার সংখ্যা, কাজের পরিমাণ ও ভৌগলিক অবস্থানের ভিত্তিতে এক বা দুই জন কর্মীর সার্জারির মাধ্যমে উপভোক্তার বাড়িতে রেশন সামগ্রী পৌঁছে দেবে।

Loading...

Duare Ration

2• গ্রাহকদের পাওনা সকল খাদ্য সামগ্রী যেমন চাল,ডাল,গম,চিনি ইত্যাদি একসাথেই দিয়ে দিতে হবে।

3• e-pos যন্ত্রের মাধ্যমে যথাযথ বায়োমেট্রিক যাচাই করে গ্রাহককে তার প্রাপ্ত পরিমাণ অনুযায়ী সামগ্রী সরবরাহ করতে হবে।

Loading...

4• পরিবারের যে কোনো একজন সদস্য epos যন্ত্রে বায়োমেট্রিক দিয়ে পরিবারের সকল সদস্যদের রেশন সামগ্রী সংগ্রহ করতে পারবেন। যদি কোন ক্ষেত্রে তিনি তার বাড়িতে অনুপস্থিতির কারণে রেশন সামগ্রী সংগ্রহ করতে পারেন তবে যেদিন রেশন দোকান খোলা থাকবে সেদিন তিনি রেশন দোকানে গিয়ে রেশন সামগ্রী সংগ্রহ করতে পারবেন।

Loading...

5

5• রেশন দোকান খোলার বিষয়ে রাজ্যের খাদ্য দপ্তর নির্দিষ্ট সময়সীমা তৈরি করবে। ডোর স্টেপ রেশন সামগ্রী বিতরণের সময় এর বিবেচনা করে রেশন দোকান খোলার সময় সীমা তৈরি করা হবে।

6• যদি কোন স্থানের ইন্টার্নেট কানেক্টিভিটি বিঘ্নিত হয় সে জন্য যাতে epos যন্ত্রের মাধ্যমে রেশন সামগ্রী বিতরণের কোন সমস্যা না হয় সেজন্য রেশন ডিলার কে ভালো ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি যুক্ত সিম নিতে হবে। সেই এলাকায় কোন কানেক্টিভিটি ভালো সেটি খতিয়ে দেখতে হবে।

Duare Ration

7• দুয়ারে রেশন (duare ration) প্রকল্পের আওতায় খাদ্যশস্য বিতরনের জন্য সংশ্লিষ্ট রেশন ডিলার দের পাইলোটিং এর তারিখ থেকে অতিরিক্ত কমিশন দেওয়ার বিষয়টি রাজ্য সরকারের বিচারাধীন থাকবে।

8• এই গাইডলাইন এ আরও বলা হয়েছে যে, রেশন ডিলার কে রেশন সামগ্রী সরবরাহের জন্য গাড়ি কেনার জন্য ভর্তুকি দেওয়া হবে। তবে এই বিষয়টিও সরকারের বিচারাধীন রয়েছে এবং যথাসময়ে আরো একটি গাইডলাইন দেওয়া হবে।

9• গাইডলাইন অনুযায়ী, প্রতিটি এলাকাকে একাধিক ক্লাস্টার এ বিভক্ত করতে হবে। প্রতিটি ক্লাস্টার এ খাদ্যশস্য বিতরণের জন্য সপ্তাহের একটি নির্দিষ্ট দিন ধার্য করতে হবে।

10• মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে চতুর্থ সপ্তাহের মঙ্গলবার , বুধবার , বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার দুয়ারে রেশন প্রকল্পের মাধ্যমে রেশন বিতরণ করা হবে । শুধু তাই নয় প্রতিটি শনিবার রেশন দোকান থেকে রেশন বিতরণ করা হবে । তবে যদি কোন জরুরী কারণবশত গ্রাহক বাড়িতে উপস্থিত না থাকেন সেক্ষেত্রে রেশন দোকানে গিয়ে তিনি রেশন সামগ্রী সংগ্রহ করতে পারবেন।

প্রসঙ্গত , চলতি মাসে রাজ্যের ১৫ % রেশন দোকানে পাইলট প্রকল্প হিসেবে দুয়ারে রেশন প্রকল্প শুরু হচ্ছে । তবে খাদ্য দপ্তর সূত্রে খবর এটিকে ধাপে ধাপে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা চলছে।