Skip to content

সূর্যের থেকেও বহুগুণ শক্তিশালী এক নক্ষত্রের সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা, গবেষণার বেরিয়ে এল আশ্চর্যজনক তথ্য!

    img 20230203 181707

    বিভিন্ন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা আমাদের মহাকাশ সম্বন্ধে যতই নানা ধরনের তথ্য প্রদান করে থাকুক না কেন তবুও মহাকাশ সম্পর্কে সম্পূর্ণ জানা কখনোই সম্ভব নয়। এছাড়াও এত বছর ধরে মহাকাশের সম্বন্ধে যত রহস্য ভেদ হয়েছে তা বলা যায় চার ভাগের এক ভাগেরও আংশিক। তবে এই মহাকাশ থেকেই এমন সমস্ত তথ্য সামনে এসেছে যা বিজ্ঞানীদের সাথে সাথে জনমানুষদের অবাক করেছে। বহুদিন ধরে মহাকাশ বিজ্ঞানীরা পৃথিবী ছাড়াও আর কোন কোন গ্রহে বসবাস করা সম্ভব তা নিয়ে গবেষণা চালাচ্ছেন। এবার আবারও মহাকাশ সম্বন্ধে আরও একটি নতুন রহস্য সামনে এসেছে। চলুন এই প্রতিবেদনে সেই রহস্য সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

    Sun

    মহাকাশ বিজ্ঞানীরা পৃথিবী থেকে প্রায় কয়েক কোটি আলোকবর্ষ দূরে এক রহস্যময় জিনিসের সন্ধান পেয়েছেন। রহস্যে ভরা জিনিসটি সত্যিই খুবই আশ্চর্যময়। কারণেই বস্তুর মধ্যে যে আলোকরশ্মি দেখা গেছে তা কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে কোন মানুষের চোখ ঝলসে দিতে পারে। পৃথিবী থেকে এই রহস্যে ভরা জিনিসটি ৩৮০ কোটি প্রকাশ বর্ষ দূরে  অবস্থিত।

    Star

    এই রহস্যময় বস্তুটি সূর্যের তুলনায় প্রায় ৫৭ হাজার কোটি গুণ বড়। তাই পৃথিবী থেকে এই বস্তুটি দূরত্ব অনেক হওয়ার কারণে বস্তুটি সঠিকভাবে পরিলক্ষিত করা যায়নি। তবে প্রকৃতপক্ষে বস্তুটি কেমন তা নিয়ে বৈজ্ঞানিক মহলে বিভিন্ন জল্পনা রয়েছে। অনেক বিজ্ঞানীর মতে এটি একটি গ্যাসীয় গোলা আবার কারোর কারোর মতে এটি দেখতে দুর্লভ ম্যাগনেটরের মতো। বিজ্ঞানীরা মনে করেছেন এটি সবথেকে শক্তিশালী এবং উজ্জল গোলা।

    Sun

    অলস্কাই অটোমেটেড সার্ভে অফ সুপার পাওয়ার (ASAS-SN) সর্বপ্রথম এই গোলার সন্ধান পেয়েছে। এই গোলার শক্তি অনুযায়ী এটি ম্যাগনেস্টার স্কেলে ১১ স্কেলের উপরে অবস্থান করে। এমনটাই জানা গেছে ওহায়ো বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাস্ট্রোনমির অধ্যাপক ফ্রিজিস্তাফ স্তানেকের থেকে। এছাড়াও তিনি জানিয়েছেন, এর কেন্দ্রে অতিরিক্ত আলো থাকার কারণে খুব দ্রুত গতিতে এটি ঘুরতে সক্ষম। এছাড়াও এই বস্তুটির মধ্যে ম্যাগনেটিক শক্তির রয়েছে যা যেকোনো বস্তুকে নিজের দিকে টানতে সক্ষম করে। পরবর্তী সময়ে বিজ্ঞানীরা এই নিয়ে আরো রহস্য উন্মোচন করতে পারে এমনটাই আশা করা যাচ্ছে।