Skip to content

হংকং এর ম্যাচে ধোনির এই রেকর্ড ভাঙতে চলেছে রোহিত শর্মা! রোমাঞ্চকর হতে চলেছে এই ম্যাচ

    img 20220830 164949

    পাকিস্তানের বিরুদ্ধে জয় নথিভুক্ত করার পর, টিম ইন্ডিয়ার চোখ থাকবে হংকংয়ের (Hong Kong) বিরুদ্ধে জয় নিবন্ধনের দিকে।  হংকংয়ের বিরুদ্ধে টিম ইন্ডিয়া জিতলে অধিনায়ক রোহিত শর্মা (Rohit Sharma) নিজের নামে একটা বড় রেকর্ড গড়বেন।

    MSD & ROHIT

    ভারত বনাম হংকং, এশিয়া কাপ ২০২২: ভারতীয় দল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে ধুমধাম করে জিতেছে।  এখন ৩১শে অগাস্ট হংকং-এর বিরুদ্ধে লড়াই করতে দেখা যাবে টিম ইন্ডিয়াকে।  এই ম্যাচ জিতে টিম ইন্ডিয়া সুপার-4-এ যেতে চাইবে।  ভারতীয় দল এই ম্যাচে জিতলে অধিনায়ক হিসেবে বড় রেকর্ড গড়বেন রোহিত শর্মা (Rohit Sharma) এবং পেছনে ফেলে দেবেন কিংবদন্তি মহেন্দ্র সিং ধোনিকে (Mahendra Shing Dhoni)।

    Rohit & dhoni

    রোহিত শর্মার নেতৃত্বে, টিম ইন্ডিয়া ২০১৮ সালে এশিয়া কাপ (Asia Cup) ট্রফি জিতেছিল।  এরপর টানা পাঁচটা ম্যাচ জিতেছিল ভারত।  একইসঙ্গে এ বছর টিম ইন্ডিয়া বেশ শক্তিশালী ফর্মে চলছে।  নিজেদের প্রথম ম্যাচেই পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে ভারত।  এখন হংকংয়ের মতো দুর্বল দলের মুখোমুখি হবে ভারত।  এই ম্যাচে টিম ইন্ডিয়া জিতলে রোহিত শর্মাই হবেন প্রথম অধিনায়ক যিনি এশিয়া কাপে টানা ৭ ম্যাচ জিতবেন।

    অসংখ্য ম্যাচ জিতেছেন ধোনি…..

    কিংবদন্তি মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে টিম ইন্ডিয়া (Team India) এশিয়া কাপে টানা ৬ ম্যাচ জিতেছে।  পাকিস্তানের অধিনায়ক মঈন খানও (Moin Khan) জিতেছেন ৬ ম্যাচে।  হংকংয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ জিতলেই রোহিত শর্মা এই দুই জায়ান্টকে পিছনে ফেলে দেবেন।  ধোনির নেতৃত্বে ভারত ২০১০ এবং ২০১৬ সালে এশিয়া কাপের শিরোপা জিতেছিল।

    See also  ফাইভ স্টার হোটেল কেও হার মানাবে ভারতের সবচেয়ে বিলাসবহুল এই ট্রেন! বিমানের থেকে বহুগুণ বেশি ভাড়া এই ট্রেনের

    সবচেয়ে বেশি শিরোপা জিতেছে ভারত (India has won the most titles) …..

    Ms Dhoni & Rohit Sharma

    বর্তমানে দারুণ গতিতে খেলছে ভারতীয় দল।  পাকিস্তান দলকে হারিয়ে ভারতের মনোবল অনেক উঁচুতে।  সবচেয়ে বেশিবার এশিয়া কাপের শিরোপা জিতেছে ভারত।  একই সঙ্গে পাঁচবার এশিয়া কাপ জিতেছে শ্রীলঙ্কা।  মাত্র ২ বার এশিয়া কাপ জিততে পেরেছে পাকিস্তান।  এ বার রোহিত শর্মার নেতৃত্বে টিম ইন্ডিয়াকে এশিয়া কাপ জেতার শক্তিশালী দাবিদার হিসেবে দেখা হচ্ছে।