Skip to content

এখন মোবাইলের মাধ্যমে বাড়িতে বসেই আয় করতে পারবেন হাজার হাজার টাকা, বিস্তারিত জানতে

    বর্তমানে রোজকার মানে শুধু বাড়ির অথবা রাজ্যের বাইরে বেরিয়ে কাজ করা নয়। বর্তমানে পরিস্থিতি পাল্টেছে। বহু কাজ রয়েছে যেটাতে বাড়িতে বসেই এখন রোজগার করা যায়। বিশেষ করে করোনা পরিস্থিতি বাড়ি থেকে কাজ করার রীতি প্রচলন হয়েছে অর্থাৎ যাকে আমরা ওয়ার্ক ফর্ম হোম বলে থাকি। ইন্টারনেটের সহজলভ্যতার কারণে এখন অনলাইনে অর্থ উপার্জন করা সম্ভবপর হচ্ছে, যা কয়েক বছর আগেও মানুষ স্বপ্নেও ভাবতে পারতো না। আপনিও যদি অনলাইনে কাজ করে বাড়িতে বসেই রোজগার করতে চান তাহলে এই খবরটি আপনার জন্য।

    কিভাবে বাড়িতে বসে অনলাইনে কাজ করে রোজগার করবেন তা নিম্নলিখিত পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করুন।

    • PTC Site গুলি ভিজিট করতে পারেন।

    ClixSense, BuxP এবং NeoBux-এর মতো Paid to Click (PTC) ওয়েবসাইটগুলিতে গিয়ে অ্যাডে ক্লিক করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এই সাইটগুলি আপনাকে রেফারেন্স প্রোভাইডার এর মাধ্যমে টাকা রোজকার করতে সাহায্য করবে তবে তার আগে ওয়েবসাইটগুলোতে আপনাকে রেজিস্টার করতে হবে।

    • প্রোমোট করতে হবে স্পনসরড প্রোডাক্ট সোশ্যাল মিডিয়াতে।

    বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া মানব জীবনে একটি শক্তিশালী মাধ্যম হিসেবে প্রকাশিত হয়েছে। জনপ্রিয় বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন ফেসবুক(Facebook), ইন্সট্রাগ্রাম(Instagram),টুইটার (Twitter) এর মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন, তাহলে সংস্থাগুলি আপনাকে তার জন্য বেশ কিছু টাকা দেবে। তবে পোস্ট করার আগে সংশ্লিষ্ট সংস্থার গুণমান সম্পর্কে আপনাকে রিভিউ দিতে হবে।

    • ভিডিও দেখতে পারেন।

    বর্তমানে শর্ট ভিডিও দেখেও রোজগার করা সম্ভব। এর জন্য আপনি Netflix ট্যাগার বা রিসার্চ ফার্ম Nielson-এর সাহায্য নিতে পারেন। এমনকি InboxDollars-ও আপনাকে ভিডিও দেখে টাকা রোজগারে সহায়তা করবে। অর্থাৎ শর্ট ভিডিও দেখেও আপনি এখন টাকা রোজগার করতে পারবেন।

    • ফটো বিক্রি করে।

    স্টক ফটোগ্রাফি ওয়েবসাইটে ফটো বিক্রি করে টাকা রোজগার করা যায়। আপনার কাছে যদি আকর্ষণীয় পুরনো অথবা নতুন ফটো এর কলেকশন থেকে থাকে তাহলে আপনি Shutterstock, Photoshelter, এবং Getty Images-এর মতো জনপ্রিয় স্টক ফটোগ্রাফি সাইটগুলিতে ছবি আপলোডও করতে পারেন। আপনার সেই ফটো বিক্রি হলে সেই সমস্ত আপনার টাকা আপনাকে পেমেন্ট করে দেবে।

    • গিফট কার্ড বিক্রি করে।

    গিফট কার্ড বিক্রি করে টাকা রোজগার করা সম্ভব। পুরনো গিফট কার্ড থাকলে সেগুলিকে CardCash-এর মাধ্যমে অনলাইনে বিক্রি করে আকর্ষণীয় ক্যাশব্যাক পেয়ে যেতে পারেন।

    See also  একদম কম খরচে ঘুরে আসুন এই ৪ টি হিল স্টেশনে, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এমনই যে আপনার হৃদয় জুড়িয়ে যাবে!

    • ফোকাস গ্রুপ এ যোগদান করে।

    ব্র্যান্ডের প্রোডাক্ট টেস্টিং করে User Interviews, FocusGroup.com বা Respondent.io-এর মাধ্যমে অনায়াসে আপনি টাকা কামাতে পারবেন।

    • আপনার মতামত প্রদান করে।

    অনলাইনে সার্ভে করে টাকা উপার্জন করা সম্ভব। Survey Junkie, Swagbucks, এবং InboxDollar-এর মতো ওয়েবসাইটে অনলাইন সার্ভে করুন ও টাকা কামান। এইসব সার্ভে গুলি করে আপনি সার্ভে পিছু 0.50 ডলার থেকে 3 ডলার পর্যন্ত উপার্জন করতে পারেন।

    • গেম খেলে টাকা উপার্জন।

    গেম খেলতে কে না পছন্দ করে! আপনি কি জানেন গেম খেলে ও টাকা উপার্জন করা সম্ভব? Second Life, Swagbucks, Lucktastic, এবং Mistplay মত গেমিং ওয়েবসাইটগুলোতে গেম খেলে টাকা উপার্জন করা সম্ভব। তার মধ্যে কতগুলি সাইট PayPal বা Gift card এর মাধ্যমে টাকা দিয়ে থাকে।

    • বিভিন্ন অ্যাপস ইন্সটল করে।

    বর্তমানে বিভিন্ন অ্যাপস ইন্সটল করে টাকা অর্জন করা যায়। সেসব অ্যাপস গুলি হল:-

    Fronto: এটি একটি লক স্ক্রিন অ্যাপ্লিকেশন যা আপনাকে Walmart, Amazon, PayPal gift cards, এবং Google Play ইত্যাদির জন্য পয়েন্ট এক্সচেঞ্জ করতে সহায়তা করবে।

    Ibotta: এটি একটি ক্যাশব্যাক অ্যাপ। আপনি কেবল এটি ব্যবহার করলেই ২০ ডলার পেয়ে যেতে পারেন।

    Slidejoy: রিওয়ার্ড পেতে হলে এটিকে আপনার লক স্ক্রিন হিসেবে ব্যবহার করুন।

    ScreenLift: পয়েন্ট বা “লিফটস” (Lifts) আর্ন করার জন্য এই Android অ্যাপটিকে আপনার ফার্স্ট স্ক্রিন বানিয়ে ফেলুন।

    • ওয়েবসাইট টেস্ট করুন ও টাকা কামান।

    বর্তমানে আমরা সারাদিন বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট পর্যবেক্ষণ করে থাকি। সেসব ওয়েবসাইট গুলির মধ্যে নানা ধরনের ভুল ত্রুটি থাকে। সেই সব ভুল ত্রুটি গুলি সম্পর্কে সংশ্লিস্ট ওয়েবসাইটের ডেভলপারদের সহায়তা করলে তারা আপনাকে অর্থ প্রদান করে।এর জন্য ওয়েবসাইটির লুক, সাইটটিকে দেখে আপনার প্রতিক্রিয়া, এবং সেটির কার্যকারিতা সম্পর্কে আপনাকে বিশদে ডেভলপারদেরকে জানাতে হবে। UserTesting, Enroll, এবং TestingTime এর মত প্ল্যাটফর্ম গুলি ওয়েবসাইট টেস্ট করে টাকা উপার্জন করতে সহায়তা করে। ওয়েবসাইট টেস্ট করে আপনি প্রতি ঘন্টায় 5 থেকে 60 ডলার পর্যন্ত রোজগার করতে পারেন।