খুব সহজ পদ্ধতিতে এখন বাড়িতে বসেই বদলাতে পারবেন রেশন কার্ডের ঠিকানা

Loading...

এতদিন পর্যন্ত রেশন কার্ডের (ration card) গুরুত্ব সেরকম না থাকলেও যখন দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট গোটা দেশে “এক দেশ এক রেশন কার্ড” চালু করার নির্দেশ দিল তখন থেকে রেশন কার্ডের গুরুত্ব বেড়ে গেল। রেশন কার্ড মূলত বিভিন্ন রাজ্য ও তাদের রাজ্যবাসীকে দিয়ে থাকে। সাধারণত রেশন কার্ড দিয়ে গরীব মানুষেরা বিনামূল্যে অথবা সরকারি নির্দিষ্ট দামে রেশন সামগ্রী যেমন চাল, ডাল, আটা , কেরোসিন ইত্যাদি সংগ্রহ করে থাকে। মূলত দারিদ্র্যসীমার উপরে(APL) এবং দারিদ্র্য সীমার নিচে (BPL) বসবাসকারী মানুষরা রেশন পেয়ে থাকেন।

“এক দেশ এক রেশন কার্ড” চালু হওয়ার ফলে রেশন কার্ডের গুরুত্ব যে বেড়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এখন আপনাকে দেখে নিতে হবে আপনার রেশন কার্ডের নাম ঠিকানা সব ঠিকঠাক আছে কিনা। যদি রেশন কার্ডে তথ্যের কোনো ভুলভ্রান্তি থাকে সেক্ষেত্রে আপনি পরে সমস্যায় পড়তে পারেন। আপনি কয়েকটি সহজ পদ্ধতির মাধ্যমে বাড়িতে বসেই নাম ঠিকানা ফোন নম্বর পরিবর্তন করতে পারেন। পদ্ধতিটি নিচে অনুসরণ করুন।

Loading...

Ration card

Loading...

রেশন কার্ডের (Ration Card) নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর পরিবর্তন ও আপডেট করার পদ্ধতি।

সর্বপ্রথম আপনাকে খাদ্য দপ্তরের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট www.pdsportal.Nic.in এ নিজের রাজ্য সিলেক্ট করতে হবে। সিলেক্ট করা হলে নতুন পেজ ওপেন হবে।

আপনি যদি ঠিকানা পরিবর্তন করতে চান সে ক্ষেত্রে নিজের রাজ্য সিলেক্ট করে আপনার আইডি-পাসওয়ার্ড বসাতে হবে। তারপর প্রয়োজনীয় সমস্ত তথ্য দিয়ে সাবমিট করুন এবং আবেদনপত্রের একটি পিডিএফ নিজে ডাউনলোড করে রাখুন।

Loading...

Ration card

Loading...

 

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস (documents)।

  • ঠিকানার প্রমাণপত্র।
  • নিজস্ব বাড়ি থাকলে লেটেস্ট টেকস্পেট রিসিপ্ট দিতে হবে।
  • ভাড়াবাড়ি থাকলে ভাড়ার রিসিভ দেওয়া যেতে পারে।
  • তিনটি পাসপোর্ট সাইজের ফটো।

উপরের পদ্ধতিতে ঠিকঠাক ভাবে অনুসরণ করুন এবং প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট দিয়ে সাবমিট করুন। যে মোবাইল নাম্বারটি আপনি দেবেন সেই মোবাইল নম্বর দ্বারা আপনি নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর স্ট্যাটাস চেক করতে পারবেন। পরবর্তী ক্ষেত্রে খাদ্য দপ্তর আপনার সমস্ত তথ্য গুলি ভেরিফাই করবে এবং খুব শীঘ্রই আপনার আবেদন গ্রহণ করা হবে এবং মোবাইল নাম্বার যুক্ত করে দেওয়া হবে।