দেশের স্বাস্থ্যের করুণ ব্যবস্থাপনা আমার ছেলে অমিতাভকে মেরে ফেলল: কার্গিল হিরো

Loading...

দেশে করোনার সংক্রমণ মৃতের সংখ্যা দ্রুত হারে বেড়ে চলেছে। দেশ সহ বিভিন্ন রাজ্যের পরিস্থিতি অত্যন্ত খারাপের দিকে এগোচ্ছে। সংক্রমণের হার বাড়ার ফলে অক্সিজেন ও বেডের অতিমাত্রায় অভাব দেখা যাচ্ছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভয়ঙ্কর ছবি সামনে আসছে। ঠিক এরকম একটি ভয়ঙ্কর ছবি এসেছে কানপুরের ভৈরব ঘাট এলাকার শ্মশানের ছবি। অবসরপ্রাপ্ত মেজর কার্গিল যুদ্ধের নায়ক মেজর হরিরাম দুবে। তার পুত্র করোনার কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন।

পুত্র বিয়োগে প্রবীণ দেশনায়ক হরি রাম দুবে অত্যন্ত ভেঙে পড়েছেন এবং জানিয়েছেন তার পুত্র মৃতদেহ শেষবার দেখার জন্য দীর্ঘ সময় প্রতীক্ষা করতে হয়েছে। মেজর জাতীয় স্তরের সংবাদসংস্থাকে দুঃখের সহিত বলেন, ” আমি 1981 সাল থেকে 2011 অবধি দেশমাতৃকার সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করেছি। কার্গিল থেকে বারমুলা লাদাখ থেকে লুকুং পর্যন্ত শত্রুপক্ষের হাত থেকে নিজের দেশকে আগলে রেখেছিলাম। এছাড়াও বারামুল্লা তে সন্ত্রাস নির্মূল করেছি। শত্রুপক্ষের কামান গোলা কে ভয় না করে বুক চওড়া করে দাঁড়িয়ে থেকেছি দেশ সীমান্তে।

Loading...

কার্গিল হিরো

Loading...

করোনা

কিন্তু দুঃখের বিষয় আমার ছেলেকে দেশ বাঁচাতে সাহায্য করল না। দেশের দুর্বল স্বাস্থ্য পরিকাঠামো আমার ছেলের প্রাণ কেড়ে নিল।” মেজর হরি রাম দুবে এর বক্তব্য অনুযায়ী, স্ত্রী-কন্যা পুত্রবধূকে নিয়ে তার ছেলে অমিতাভের নিথর দেহটি শেষবারের মতো দেখার জন্য দীর্ঘক্ষন প্রখর রোদে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছে। কিন্তু কেউ তাকে সাহায্য করেনি। অথচ এই দেশ সেবক জীবনের বেশিরভাগ সময়ই দেশের রক্ষায় কাটিয়ে দিয়েছে। ঘটনাটি সত্যিই মর্মান্তিক। এটি আমাদের দেশ ও দেশবাসীর জন্য লজ্জাজনক।

Loading...