আমার পার্টিতে যোগদান করুন, এবার বিদেশ থেকেও পড়েছে নরেন্দ্র মোদীর ডাক

বর্তমানে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে COP26 সম্মেলন উপলক্ষে উপস্থিত রয়েছেন। এছাড়াও ইজরায়েল এর প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। দুই দেশের কোনো প্রধানমন্ত্রীর সাথে এই প্রথম একটি বৈঠক। বিশ্বের দুই শক্তিশালী রাষ্ট্রের দুই প্রধানমন্ত্রীর এই বৈঠক সফল হয়েছে এবং বড় বড় সংবাদমাধ্যমে বৈঠক এর বিভিন্ন ছবি ও কথোপকথন প্রকাশিত হয়েছে।

Narendra Modi

এই বৈঠকের কথোপকথনে নরেন্দ্র মোদীকে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আপনি সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্যক্তি।” এই উত্তরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ধন্যবাদ জানান। এবং নরেন্দ্র মোদিকে মজা করে বলেন,” আসুন আপনি আমার দলে যোগ দিন।” এই কথায় নরেন্দ্র মোদিকে হাসতে দেখা যায়। এই কথোপকথনের মাধ্যমে বোঝাই যাচ্ছে ভারত ও ইসরাইলের মধ্যে সম্পর্কের বন্ধন কতটা মজবুত।

ভারত এর সাথে ইজরায়েল এর সম্পর্কের যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে। গ্লাসগোতে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সম্মেলনে বিশ্বের দুই শক্তিশালী নেতার এই কথোপকথন যথেষ্ট চর্চায় রয়েছে। দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বের সম্পর্ক কতটা মজবুত থাকলে এই রকম কথোপকথন আসা করা যায়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) প্রধানমন্ত্রী বেনেট কে বলেন, ” ভারতবাসী ইজরায়েল এর সাথে বন্ধুত্বের সম্পর্ক কে যথেষ্ট গুরুত্ব দেয়।”

নরেন্দ্র মোদী

ওইদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) একটি টুইট করে বলেন, ” গ্লাসগোতে দুই নেতার মধ্যে বৈঠক সফল হয়েছে, এবং উভই নেতায় নিজ নিজ নাগরিকদের সকল প্রকার সহযোগিতা দিতে দৃঢ় কর্তবপরায়ন।” এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আরো বলেন,” ভারত ইজরায়েল এর সম্পর্ক শুধু রাজনৈতিক নয়, এই সম্পর্ক হৃদয় এর।” অন্যদিকে ইজরায়েল এর প্রধনমন্ত্রী নাফতালি বেনেট জানান যে, ভারত ইজরায়েল এর সম্পর্ককে তারা নতুন স্তরে নিয়ে যাবেন এবং একসাথে দুই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে।

COP 26 সম্মেলন এর শুরুতে বেনেট নরেন্দ্র মোদীকে বলেন , ‘ আমি আপনাকে ধন্যবাদ জানাতে চাই । আপনি হলেন সেই ব্যক্তি , যিনি ভারত এবং ইজরায়েলের মধ্যে সম্পর্ক পুনরায় শুরু করেছেন । যা দু’টি অনন্য সভ্যতার মধ্যে একটি গভীর সম্পর্ক । ভারতীয় সভ্যতা ও ইহুদি সভ্যতা- আমি জানি এটি আপনার হৃদয় থেকে আসে । এটি রাজনৈতিক স্বার্থসিদ্ধির সম্পর্কে নয় , এটি একটি গভীর হৃদয় এর সম্পর্ক। ভবিষ্যতে এই দুই দেশে আরো এগিয়ে যাবে।”