বাড়িতে বসেই এই সহজ পদ্ধতিতে করে নিন আধার কার্ডের সাথে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর লিঙ্ক, নাহলে বাতিল হয়ে যাবে লাইসেন্স

Loading...

বর্তমানে আধার কার্ড(Aadhaar card) ভারতবাসীর কাছে একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দলিল হয়ে উঠেছে, যা আপনার জন্ম,ঠিকানা এবং প্রধান পরিচয় পত্র হিসেবে কাজ করে এই কারণে, সরকার সব জায়গায় আধারকে বাধ্যতামূলক করেছে। আধারকে PAN বা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে লিঙ্ক করা থেকে শুরু করে ধীরে ধীরে সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ নথির সঙ্গে আধার সংযুক্ত করা হচ্ছে। এই পর্বে, এখন আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্সের(Driving License) সঙ্গে আধার লিঙ্ক করাও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

আপনি যদি এখনও আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স এর সাথে আধার কার্ড লিঙ্ক না করেছেন তাহলে খুব সহজ পদ্ধতিতে আপনি তা করে ফেলতে পারবেন। নিম্নে বর্ণিত পদ্ধতি গুলি অনুসরণ করুন এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স এর সাথে আধার কার্ড সংযুক্ত করে ফেলুন।

Loading...

1• আধার কার্ডকে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর সাথে লিঙ্ক করতে হলে আপনাকে প্রথমে ওয়েবসাইট sarathi.parivahan.gov.in- এ যেতে হবে। এখানে আপনাকে ড্রাইভিং লাইসেন্স এ প্রদত্ত রাজ্য নির্বাচন করতে হবে। এর পরে আপনার সামনে একটি উইন্ডো খুলবে।

Loading...

2• এখানে ডান পাশের মেনু বারে অনলাইনে আবেদন করার অপশন দেওয়া হবে। এখানে আপনাকে ড্রাইভিং লাইসেন্স (Renewal/Duplicate/Aedl/Others) সম্পর্কিত পরিষেবাগুলিতে ক্লিক করতে হবে। তারপর এখানে একটি নতুন উইন্ডো খুলবে যেখানে আপনাকে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে পূরণ করতে হবে এবং Continue এ ক্লিক করতে হবে।

Aadhar card (আধার কার্ড)

Driving licence (ড্রাইভিং লাইসেন্স)

Loading...

3• এর পরে, লাইসেন্স নম্বর, জন্ম তারিখ ইত্যাদি পূরণ করার পরে, Get Details ট্যাবে ক্লিক করুন। এখানে এখন আপনাকে আপনার আধার নম্বর এবং রেজিস্টার মোবাইল নম্বর লিখতে বলা হবে। এই প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করার পর Submit বাটনে ক্লিক করুন। আপনার রেজিস্টার মোবাইল নম্বরে একটি OTP আসবে। OTP লিখে আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্সকে আধারের সঙ্গে সংযুক্ত করার প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ করুন।

Loading...

ড্রাইভিং লাইসেন্সকে আধারের সঙ্গে সংযুক্ত করার অনেক সুবিধা রয়েছে। কয়েকটি সুবিধা হল যে সরকার অবৈধ লাইসেন্স নিষিদ্ধ করতে সক্ষম হবে। এছাড়াও, যাদের একাধিক লাইসেন্স আছে তারা এখন শুধুমাত্র একটি লাইসেন্স রাখতে পারবে। এছাড়াও, নকল ড্রাইভিং লাইসেন্স(duplicate driving licence) সহজেই সনাক্ত করা যায়। একই সময়ে, দুর্ঘটনা বা যানবাহন চুরির পরে, গাড়ির মালিককে সহজেই সনাক্ত করা যায় এবং যোগাযোগ করা যায়।