বাড়িতে টিকটিকির উপদ্রব! এই ৮ টি ঘরোয়া উপায়ে দূর করুন বাড়ির সব টিকটিকি

Loading...

ঘরে কি টিকটিকির উপদ্রব বেড়েছে? বিষয়টি নিয়ে কী আপনি অস্বস্তিতে আছেন? চিন্তার কিছু কারণ নেই। ঘরোয়া উপায়ে তাড়াতে পারেন টিকটিকি । কিভাবে বিস্তারিত জেনে নিন। বাজারে অনেক মিশ্রণ কিনতে পাওয়া যায় টিক টিকি তাড়ানোর জন্য। কিন্তু সেগুলি প্রয়োগে সাময়িকভাবে টিক’টিকি থেকে মুক্তি পাওয়া গেলেও স্থায়ী কোনো সমাধান হয় না। তাই আজ কতগুলি ঘরোয়া পদ্ধতি আপনাদের জানাবো যার সাহায্যে আপনি বাড়ি থেকে টিক-টিকি বিদায় করতে পারেন।

১. টিকটিকি ন্যাপথলিনের উপগ্রহ গন্ধ সহ্য করতে পারেনা। তাই টিকটিকি যাতায়াতের স্থানে যদি ন্যাপথলিন রেখে দিতে পারেন তাহলে অনেকটা কাজে দেবে টিক’টিকি তাড়াতে।

Loading...

২. টিকটিকি যেহেতু সরিসৃপ প্রানী তাই ঠান্ডা জলের ছিটে দিলে টিকটিকির স্নায়ু দুর্বল হয়ে যায়। ঘরের বিভিন্ন কোনায় টিক টিকি লুকিয়ে থাকে এই সমস্ত জায়গায় ফিনাইল ট্যাবলেট রেখে দিতে পারেন। দেখবেন টিকটিকি পালিয়ে গেছে।

Loading...

৩. টিকটিকি তাড়াতে তামাক একটি কার্যকরী উপাদান হিসেবে কাজ করে। প্রথমে কিছুটা তামা গুঁড়ো করে ঘন পেস্ট তৈরি করুন তারপর সেগুলি গোল গোল বলের আকারে তৈরি করে যেখানে টিকটিকির যাতায়াত বেশি সেখানে রেখে দিন। কিছুদিনের মধ্যেই টিক’টিকি এর বাড়বাড়ন্ত কমে যাবে।

টিকটিকি

টিকটিকি

Loading...

৪. বেশিরভাগ সময় জানালা দরজার কোনায় টিক’টিকি দেখতে পাওয়া যায়। এইসব জায়গায় ডিমের খোসা রেখে দিতে পারেন। এটি টিকটিকির ইন্দ্রিয়কে দুর্বল করে দেয় এবং বাড়ির ভেতর টিকটিকি ঢুকতে আর পছন্দ করবে না।

Loading...

 

৫. বাড়িতে আপনি একটি তরল দ্রবন তৈরি করে সেটি স্প্রে করতে পারেন। একটি বোতলে জল নিয়ে তাতে কয়েক চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো আর শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো একসাথে মিশিয়ে দ্রবন তৈরি করে ফেলুন। এবং যেসব জায়গায় টিক টিকি দেখতে পাবেন সেই সব জায়গায় এই দ্রবণ স্প্রে করুন। খেয়াল রাখবেন এই দ্রবণের একটি ফোটাও যাতে চোখেমুখে না লাগে।

ময়ূর পালক

৬. টিকটিকি তলাতে ময়ূরের পালক অনেকাংশে কাজে দেয়। তাই ঘরের দেওয়ালের কোনে আপনি ময়ূরের পালক টাঙ্গিয়ে রাখতে পারেন।

টিকটিকি

টিকটিকি

৭. পেঁয়াজ ও রসুনের মধ্যে থাকা বিশেষ অ্যাসিড এর বন্ধ টিকটিকির পক্ষে খুবই অস্বস্তিকর। পেঁয়াজ কেটে অথবা রসুন এর কোয়া ঘরের কোনায় রেখে দিন। দেখবেন কিছুদিনের মধ্যে বাড়িতে আর একটিও টিক’টিকি খুঁজে পাবেন না।

৮. এছাড়াও বাড়িঘর প্রতিদিন জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার করুন । এই জীবানুনাশক প্রয়োগে অনেক কীটপতঙ্গ আসতে বাধা দেবে। টিকটিকি আসার মূল কারণ হলো বাড়িতে পতঙ্গের বাড়বাড়ন্ত। এছাড়াও বাড়িতে দেওয়ালে টাঙানো আসবাবপত্র নিয়মিত খুলে পরিষ্কার করুন। কারণ দেওয়ালে টাঙানো ফটো ফ্রেম ইত্যাদি দীর্ঘদিন পরিষ্কার না করলে টিকটিকি স্থায়ী বাসা তৈরি করে নেয়।

এছাড়া উপরে বর্ণিত ঘরোয়া পদ্ধতি গুলি অনুসরণ করুন দেখবেন টিক টিকি থেকে মুক্তি পেয়ে যাবেন।