Skip to content

এক সময় করতেন পিয়নের কাজ, এই দুর্দান্ত আইডিয়ার জেরে আজ বছর গেলে আয় করছেন 10 কোটি টাকা

    ছোটু শর্মা আজকের সময়ে আমাদের সকলের জন্য অনুপ্রেরণার উদাহরণ। কঠোর পরিশ্রমে আজ কোটি টাকার মালিক হয়েছেন ছোটু শর্মা। পিয়ন থেকে মালিক হওয়া ছোটু শর্মার সাফল্যের যাত্রা মোটেই সহজ ছিল না। আসুন তার সফলতার যাত্রা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

    জেনে নিন ছোটু শর্মার প্রথম জীবনের গল্প…

    ছোটু শর্মা হিমাচল প্রদেশের একটি ছোট গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একটি ছোট সরকারি স্কুল থেকে প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন এবং এরপর 1998 সালে ধলিয়ারা কলেজ থেকে বিএ-তে গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেন। বিএ-তে গ্রাজুয়েশন শেষ করে চাকরির সন্ধানে চণ্ডীগড়ে পৌঁছে গেলেও বর্তমানে বিএ গ্রাজুয়েশন ডিগ্রির ভিত্তিতে চাকরি পাওয়া খুবই কঠিন বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তার ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটে।

    যেখানেই তিনি ইন্টারভিউ দিতে যেতেন, সবাই তার কাছে প্রফেশনাল ডিগ্রী চাইতেন যা তার ছিল না। সর্বোপরি সব চেষ্টার পর এক বন্ধুর পরামর্শে কম্পিউটার কোর্স করার কথা ভাবলেন। কারণ সেই সময়ে যারা কম্পিউটার কোর্স করছেন তাদের জন্য চাকরি প্রচুর ছিল, কিন্তু ভাগ্য তাদের এখানেও পরীক্ষা শুরু করে। কারণ তার পকেটে কোনো ধরনের কম্পিউটার কোর্স করার টাকা ছিল না।

    Chotu Sharma

    জেনে নিন অ্যাপটেক কম্পিউটার সেন্টারে পিয়ন হওয়া ছোটু শর্মার গল্প…

    ছোটু শর্মা একটি কম্পিউটার কোর্স করার জন্য চণ্ডীগড়ের একটি স্থানীয় অ্যাপটেক কম্পিউটার সেন্টারে কথা বলেছেন। কিন্তু তার কোর্স ফি অনেক বেশি হওয়ায় এবং আর্থিক অবস্থার বিবেচনায় তিনি নিজেই ‘অ্যাপটেক কম্পিউটার সেন্টার’-এ পিয়নের চাকরি নেন। এবং সেখানে কম্পিউটার কোর্সে ভর্তিও হন।

    এরপর সারাদিন অ্যাপটেক কম্পিউটার সেন্টারে পিয়নের কাজ করতেন এবং রাতে জেগে পড়াশোনা করতেন। কম্পিউটার কোর্সটি ছিল পুরো এক বছরের জন্য এবং পিয়ন হিসেবে তিনি যে বেতন পেতেন তা ছিল নগণ্য। অবস্থা এমন ছিল যে, ফি-র টাকা জমা দিতে গিয়ে কয়েকদিন না খেয়ে ঘুমাতে হয়েছে। কিন্তু তার জীবনের লক্ষ্য অর্জনে অবশেষে দিনে দিনে কম্পিউটার কোর্স শেষ করে কম্পিউটার বিশেষজ্ঞ হয়ে ওঠেন।

    Chotu Sharma

    ছোটু শর্মার নিজের কম্পিউটার সেন্টার ইনস্টিটিউট শুরু করার গল্প জেনে নিন…

    ছোটু শর্মা তার সঞ্চয় এবং আমানত দিয়ে একটি দুই রুমের ভাড়ার ফ্ল্যাটে তার স্বপ্নকে আরও বড় করার স্বপ্ন নিয়ে তার নিজস্ব কম্পিউটার সেন্টার প্রতিষ্ঠান শুরু করেছিলেন। যার মধ্যে ধীরে ধীরে তার কঠোর পরিশ্রমের ফল পাওয়া যায় এবং পরবর্তী 6 মাস ধরে 80 টিরও বেশি শিক্ষার্থী ওই কম্পিউটার সেন্টার ইনস্টিটিউটে আসতে শুরু করে। এরপর তিনি কম্পিউটার সেন্টার ইনস্টিটিউটের জন্য আরও জায়গা নেন, পাশাপাশি অনেক কম্পিউটারও বসানো হয়। এবং তার কম্পিউটার সেন্টার ইনস্টিটিউট সারা চণ্ডীগড় জুড়ে ‘ডট নেট কোর্স’ প্রশিক্ষণের জন্য বিখ্যাত হয়ে উঠেছিল।

    Chotu Sharma

     ‘সিএস ইনফোটেক’ ইনস্টিটিউট এবং ‘সিএস সফট সলিউশন’ কোম্পানি শুরু করার ছোটু শর্মার গল্পটি জানুন…

    ছোটু শর্মা তার কঠোর পরিশ্রম এবং নিষ্ঠার সাথে 2007 সালে চণ্ডীগড়ের অনেক জায়গায় সিএস ইনফোটেক ইনস্টিটিউট নামে একটি নিজস্ব ইনস্টিটিউট খোলেন। যেখানে আজ হাজার হাজার ছেলে মেয়ে কম্পিউটার কোর্স করে তাদের ভবিষ্যৎ তৈরি করছে। এর পরে, 2009 সালে, ছোটু শর্মা মোহালিতে নিজের জমি কিনেছিলেন। এবং সিএস সফট সলিউশন কোম্পানি শুরু করেছে, যেটি আজ বড় বড় কোম্পানিকে সব ধরনের সফটওয়্যার সংক্রান্ত সেবা প্রদান করে। আর এ কোম্পানিতে কাজ করছেন শতাধিক কর্মী।