চাঞ্চল্যকর তথ্য! ৫ বছর আগেই করোনা কে ‘জৈব অস্ত্র’ হিসেবে ব্যবহার করার কথা ভেবেছিল চীন

Loading...

প্রতিবেশী দেশ চীন বিভিন্ন সময়ে নানাভাবে বিশ্বকে সমস্যার মুখে ফেলে দিয়েছে। এইবারও করোনা নামক মারাত্মক মারণক্ষমতা যুক্ত একটি ভাইরাস এর সৃষ্টি করলো এই চীন ই। এই ভাইরাস সৃষ্টিতে চীনের প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ হাত রয়েছে। কিন্তু কোন শক্ত প্রমাণের অভাবে চীনকে কাঠ গড়ায় দাঁড় করাতে পারছে না বিশ্বের কোন দেশ। এই করোনাভাইরাস এর দায় বারবার ঝেড়ে ফেলতে চাইছে প্রতিবেশী দেশ চীন। কিন্তু এইবারে একটি বিশেষ নথি প্রকাশ্যে এসেছে

যার ফলে ‘সার্স করোনা ভাইরাস’ নিয়ে চীনের বিশেষ কয়েকটি গোপন পরিকল্পনা ফাঁস হয়ে গেছে। জানা যাচ্ছে যে চীনের সামরিক বিজ্ঞানীরা  নাকি 2015 সালে এই করোনা ভাইরাস কে জৈব অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করার বিষয়ে আলোচনা করছিল। এই বিষয়টি চিন এর ই এক বিজ্ঞানী ফাঁস করে দিয়েছেন। বিজ্ঞানীর নাম লি-মেং, ইনি হলেন একজন ভাইরোলজিস্ট। এনার দাবি গোটা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। ইনি চীনা ভাষায় লেখা কয়েকটি নথি ইংরেজিতে ট্রান্সলেট করে টুইট করেছেন।

করোনা

করোনা

টুইট টি তে উল্লেখ রয়েছে, সার্স-কোভ-2 ভাইরাসটি একটি গবেষণা কেন্দ্রে তৈরি করা হয়েছে। এবং চীনের বিজ্ঞানীরা এই ভাইরাসটি কে জৈব অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করার বিষয়ে আলোচনা করছিলেন। শুধু এই নয় তারা এই জৈব অস্ত্র ব্যবহার করে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ এর বিষয়েও আলোচনা করছিলেন। আজ থেকে প্রায় 5 বছর আগে যখন বিশ্ব সাধারণ ছন্দে ছিল ঠিক তখন আমাদের প্রতিবেশী দেশ চীন এই ভাইরাস তৈরিতে ব্যস্ত ছিল।

অস্ট্রেলিয়ার এক ওয়েবসাইটে দাবি করা হয় এই ভাইরাসের জিন ইচ্ছে মত পরিবর্তন করে মানব শরীরের ঘাতক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে এই নথি প্রকাশ্যে আসার পরও চীনের তরফ থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া আসেনি। তবে এই খবর নেট দুনিয়ায় যথেষ্ট তোলপাড় করেছে। এবং গোটা বিশ্ব এই বিষয়টির উপর নজর রাখছে।