বড় ঝাটকা! সরকারের এই নিয়মের ফলে বাড়তে চলেছে বিদ্যুতের দাম, চাপ বাড়ল সাধারণ মানুষের

রান্নার গ্যাস,পেট্রোল-ডিজেল এর পর এবার বৈদ্যুতিক বিল বাড়তে চলেছে। এমনিতেই আমজনতার এই মূল্যবৃদ্ধিতে দুর্দশার শেষ নেই, তারপর আবার এই বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি! বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির কারণ হিসেবে দেশে কয়লার ঘাটতিকে দায়ী করেছে সরকার। সরকারের মতে, দেশে কয়লার ঘাটতির ফলে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থাগুলি যথেষ্ট সংকটে রয়েছে এবং এর ফলস্বরূপ বাড়তে চলেছে বিদ্যুতের দাম।

বিদ্যুতের দাম

আমাদের দেশ একদিকে যেমন কয়লা উৎপাদন করে তার থেকে বেশি আমদানি ও করে থাকে। যেহেতু দেশে কয়লা সংকট, সেহেতু বাইরে থেকে বেশি পরিমাণে কয়লা আমদানি করতে হচ্ছে। এবং আন্তর্জাতিক তেল সরবরাহ কারী সংস্থা গুলি জ্বালানির দাম বৃদ্ধি করার ফলে কয়লা আমদানির উপর প্রভাব পড়ছে। এই জন্য সরকার Automatic pass through নামের একটি মডেল জারি করতে চলেছে। এর ফলে আম জনতার উপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি হতে চলেছে।

Prepaid Meter

কি এই Automatic pass through মডেল তা জেনে নেওয়া যাক। কোন কারণে বিশ্ববাজারে যদি জ্বালানি তেলের দাম বাড়ে তা সরাসরি প্রভাব পড়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী সংস্থা গুলির উপর। এই মডেল অনুযায়ী, ভবিষ্যতের জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী সংস্থা গুলি কেও অতিরিক্ত দাম দিতে হবে।রাজনৈতিক দল এবং সরকারি চাপ থাকা সত্ত্বেও ডিসকমগুলিকে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম বাড়াতে হবে।

 

(যদি জ্বালানীর হারে পরিবর্তন হয়, তাহলে বিদ্যুতের শুল্ক বছরে কয়েকবার আপডেট করা যেতে পারে, ধারা 62(4) বিদ্যুৎ আইন)। এবং এর প্রভাব সরাসরি আম জনতার পকেটের উপর পড়বে। এবার সময়ের অপেক্ষা দেখা যাক সরকার জনতার কথা ভেবে কোন সিদ্ধান্ত নেয়।