শিশুদের বাইকে বসানো নিয়ে জারি করা হলো নতুন নিয়ম। না মানলে দিতে হবে বড় জরিমানা

ছোটদের মোটরসাইকেলে (bike) বসানো নিয়ে এক কড়া নিয়ম আনতে চলেছে কেন্দ্র সরকার। ইতিমধ্যে এই আইনের খসড়া তৈরিও হয়ে গেছে। ভারতের সড়ক পথে যত গাড়ি চলে তার তিন চতুর্থাংশই হলো মোটরসাইকেল। কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই দেখা যায়, চালকরা হেলমেট পড়লেও শিশু আরোহীদের মাথা ফাঁকাই থাকে। এইজন্য শিশু আরোহীদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে এই কড়া নিয়ম আনতে চলেছে কেন্দ্র সরকার। অভিভাবকদের এই অভ্যাস বন্ধ করে শিশু আরোহীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাই কেন্দ্র।

Bike riding rule

এই আইন অনুযায়ী, নয় মাস থেকে চার বছর বয়সের কোনো শিশু মোটরসাইকেলে বসলে হেলমেট পরা বাধ্যতামূলক হবে। এছাড়াও চালকের সঙ্গে শিশু আরোহীদের বেঁধে রাখার জন্য “সেফটি হারনেস” ব্যবহারও বাধ্যতামূলক। এমনকি শিশু আরোহী মোটরসাইকেলে থাকলে ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটারের বেশি গতি রাখা যাবে না। এই আইন লঙ্ঘন করলে চালকের ১০০০ টাকা জরিমানা এবং তার সাথে ৩ মাসের জন্য তার লাইসেন্স বাতিল হতে পারে।

১৯৮৯ সালের কেন্দ্রীয় মোটর ভেহিকেলস আইনে সংশোধন আনতে চেয়ে সড়ক পরিবহন ও হাইওয়ে মন্ত্রক এই সংশোধনের প্রস্তাব এনেছে। গত মঙ্গলবার এই আইনের খসড়া প্রকাশিত হয়েছে। জানা গিয়েছে ২০২২ সাল থেকেই এই নতুন বিধি কার্যকর করতে চাই নীতিন গডকড়ির মন্ত্রক। আইন তৈরি হয়ে গেলে সব রাজ্যকেই সেইমতো নিয়ম বদলাতে হবে।

Child safety on bike riding

 

প্রস্তাবিত আইনে স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে, শিশু আরোহীর মাথায় কোনো সাধারণ হেলমেট চলবে না, থাকতে হবে আইএসআই (ISI) মার্কযুক্ত হেলমেট। খসড়া আইনে বলা হয়েছে “সেফটি হারনেস” হতে হবে টেকসই ও হালকা। তা যেন সহজেই ছোট-বড় করা যায় এবং তা যেন ৩০ কেজি ওজন বইতে পারে। “সেফটি হারনেস” ভালো নাইলনের তৈরি হতে হবে। মাল্টি ফিলামেন্ট নাইলন হলে আরো ভালো। প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে যে শিশু আরোহী থাকা মোটরসাইকেলের গতি ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার এর বেশি রাখা যাবে না।