Skip to content

না বলিউড না সাউথ, দেশের জন্য সিনেমা তৈরি করতে চাই! এই মন্তব্যে দেশবাসীর মন জয় করলেন অভিনেতা রামচরণ

    img 20221204 092752

    গত বছর থেকেই বক্স অফিসে বলিউডের (Bollywood) অবস্থা বেহাল, সেই জায়গা দখল করে নিয়েছে মুক্তি পাওয়া সমস্ত দক্ষিণী চলচ্চিত্রগুলি (South Cinema)। সেই সময়ের একটি বিখ্যাত সিনেমা হল আরআরআর (RRR)। দক্ষিণের স্বনামধন্য পরিচালক এসএস রাজামৌলি (SS Rajamouli) দর্শকদের এই সিনেমাটি উপহার দিয়েছিলেন। এই সিনেমাটি সারা বিশ্বে প্রায় ১০০০ কোটি টাকার উপর ব্যবসা করেছে। এই সিনেমায় অভিনয় করেছেন রামচরণ তেজা (Ramcharan Teja), জুনিয়র এনটিআর (Junior NTR) এবং আলিয়া ভাট (Alia Bhatt) সহ আরও অনেক শিল্পীরাই।

    RRR

    আর কিছুদিন বাদেই এই সিনেমার সিকুয়্যাল আনতে চলেছেন ছবির পরিচালক। যদিও এখনও সমস্ত পরিকল্পনামাফিক কাজ প্রাথমিক পর্যায়ে। তবে এখন থেকেই এই সিনেমা নিয়ে দর্শকদের মধ্যে উত্তেজনার শেষ নেই। তবে আজ এই প্রতিবেদনে আরআরআর (RRR) চলচ্চিত্রের অভিনেতা রাম চরণের (Ram Charan) সম্বন্ধে কিছু বলব। এই দক্ষিণী অভিনেতা ২০১৩ সালে “জঞ্জির” সিনেমার হাত ধরে বলিউডে প্রবেশ করেছিলেন। ছবিতে রামচরণের বিপরীতে ছিলেন স্বয়ং প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। এই দুর্দান্ত শিল্পীদের নিয়ে সিনেমাটি গড়ে উঠলেও বক্স অফিসে তা মুখ থুবড়ে পড়েছিল। তারপর থেকে কোন হিন্দি সিনেমায় অভিনয় করেনি রামচরণ।

    Ram Charan

    তাহলে প্রশ্ন এখন একটাই, এই কারণেই কি নিজেকে সচেতনভাবে বলিউড থেকে দূরে সরিয়ে রেখেছিলেন অভিনেতা? একটি সাক্ষাৎকারে তাকে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জবাবে বলেন, “সঠিক স্ক্রিপ্ট এর সিনেমা বাছা সমস্ত শিল্পীর জরুরি। কোন ভালো সুযোগ থাকলে আমি নিশ্চয়ই অভিনয় করব। চলচ্চিত্র একটি শিল্প আর প্রত্যেকটি সিনেমা তৈরি করা হয় ভারতের সকল দর্শকদের জন্যই।”

    See also  মিশরে খোঁজ মিলল ৪৮০০ ফিট লম্বা এই গভীর সুড়ঙ্গের, ভিতরে পাওয়া গেল শেষ রানীর সমাধি!

    Ram Charan Priyanka Chopra

    তবে সম্প্রতি আরও একটি সাক্ষাৎকারে তার কথায় মুগ্ধ হয়েছেন নেটিজেনরা। তিনি বলেছিলেন, এবার সময় এসেছে একটি সিনেমা কে বলিউড, টলিউড, হলিউড এই তকমাগুলি থেকে মুক্তি দেওয়ার। তিনি সমস্ত সহকর্মীদের এই বিষয়টি নিয়ে পরিকল্পনা করতে বলেছেন এবং উদ্যোগটিকে সফল করার প্রতি নজর রাখতে বলেছেন। দেশে শুধুমাত্র একটি ইন্ডাস্ট্রি থাকা উচিত আর তা তা হল চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি। দর্শকদের বিনোদন দেওয়ার এই ক্ষেত্রে যেন কোনো ভেদাভেদ না থাকে।

    Ram Charan

    এছাড়াও তিনি আঞ্চলিক চলচ্চিত্রের হিন্দি রিমেকের প্রতি অত্যাধুনিক প্রবণতা বৃদ্ধি পাওয়ার সম্পর্কে জানিয়েছেন, এই মডেলটি বেশি দিন চলবে না। তার মতে দর্শকরা যখন একবার ডিজিটাল প্লাটফর্মে আসল চলচ্চিত্রটি দেখে ফেলেন তখন তাদের রিমেকের প্রতি আকর্ষণ থাকে না।