কৃষি আইন বাতিলে উচ্ছসিত তারকা অভিনেতা সনু সুদ, দিলেন বড় বয়ান

শুক্রবার সকালে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিতে গিয়ে দেশের সমস্ত কৃষকদের কাছে ক্ষমা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শুক্রবার সকালেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বির্তকিত তিনটি কৃষক আইন (কৃষি বিল ) বাতিল করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন। আর এই ঘোষণার ফলে কার্যত সনু সুদ সহ আরো বিভিন্ন তারকা অভিনেতা উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েছেন । প্রকাশ্যেই ময়দানে খেটে খাওয়া মানুষগুলোর উদ্দেশ্যে স্যালুট জানিয়েছেন অভিনেতা সনু সুদ। কৃষি আইন বাতিল কে কেন্দ্র করে দেশের কৃষকদের সমর্থনের উদ্দেশে স্যালুট জানিয়ে সনু সুদ বলেন, “জয় জওয়ান, জয় কিষাণ”।

সনু সুদ

বলা চলে গত এক বছর ধরে চলা সমস্ত আন্দোলন এবং প্রতিবাদ আজ সার্থক হল ।প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কৃষি আইন তুলে নিলেন । আজ শুক্রবার সকালেই গুরু নানকের জন্মদিনে প্রধানমন্ত্রী এরকম একটি কৃষকদের উদ্দেশ্যে নেওয়ার সিদ্ধান্ত খুবই খুশি অভিনেতা সনু সুদ। এই দিন সকালেই অভিনেতা টুইটারে পোস্ট করেন , “দেশের কিষান তার কৃষি থেকে আয় করবে। দেশের কৃষি আবার উঠে দাঁড়াবে। প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদিকে অসংখ্য ধন্যবাদ। এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের ফলে দেশের সমগ্র কৃষক জাতি উপকৃত হবেন । জয় সংগ্রাম, জয় কৃষক। ”

Sonu sood

বলাবাহুল্য এই জয় দেশের সমগ্র কৃষক জাতির এক বড় জয় । এক কথায় বলতে গেলে গত এক বছর ধরে চলা কৃষক আন্দোলনের কাছে কার্যত পরাস্ত হলেন মোদি সরকার। লাগাতার এক বছর ধরে দেশজুড়ে চলতে থাকা প্রবল প্রতিবাদ এর জন্য শেষমেষ ৩ বিতর্কিত কৃষি আইন বাতিল করতে বাধ্য হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই প্রেক্ষিতে কৃষি বাহিনীর পক্ষে সুর মিলিয়েছেন দেশের মানুষেরা এর সাথে সুর মিলিয়েছেন অভিনেতা সনু সুদও।

২০২০ সালে সেপ্টেম্বর মাসে তিনটি কৃষি বিল পাস হওয়ার পর রাস্তায় নেমেই প্রবল বিক্ষোভের সোচ্চার হয়েছিলেন লক্ষ লক্ষ দেশের কৃষক। হরিয়ানা, পাঞ্জাব এর কৃষকেরা এসে বিক্ষোভে ফেটে পড়েছিলেন রাজধানী দিল্লিতে। মাসের পর মাস ধরে দিল্লি সীমান্ত বিক্ষোভ ও চলেছিল। উত্তর প্রদেশ ,বিহার, রাজস্থান, পাঞ্জাব বিভিন্ন অঞ্চলের কৃষকেরা একজোট হয়েছিলেন । কংগ্রেস ও বিজেপি দলের একাধিক বিরোধী নেতারা এর সাথে পক্ষপাতিত্ব করেছিলেন।

তবে অবশেষে শুক্রবার সকালেই জয়ের হাসি হাসলেন দেশের কৃষকরা। এই দিন সকালে দেশের সমস্ত কৃষকদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বলেন, আজ আমি সবাইকে বলতে চাই যে, আমরা তিনটি কৃষি আইন নীরবতার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলো দেশের সমগ্র কৃষকেরা এবং ক্ষুদ্র চাষিরা যেন শক্তি পায়। তাদের উৎপাদিত পণ্যের দাম যেন তারা সঠিক পরিমাণে পায় ।

আমি এই তিনটি কৃষি বিল আইন বাতিল করছি। তিনি আরো বলেন কৃষকদের জন্য সংসদে আলোচনা এবং চিন্তাভাবনা চলছে। দেশের লক্ষ লক্ষ কৃষকদের আজকে আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই । আমাদের সরকার দেশের প্রত্যেকটি কৃষকদের কল্যাণে, দেশের কৃষি উন্নয়নে ,গ্রামীণ দরিদ্র মানুষদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।