Skip to content

দুয়ারে সরকার শুরু হবার আগেই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে বড় ঘোষণা, এবার থেকে টাকা পেতে হলে করতে হবে এই কাজ

    পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য দপ্তর এর তরফ থেকে স্বাস্থ্য সাথী (Swasthya Sathi) কার্ড সম্পর্কে নয়া অ্যাডভাইসারি ঘোষণা করা হলো। এই অ্যাডভাইসারি গুলি বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোম গুলিকে মেনে চলতে হবে। ওই সমস্ত বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিং হোম গুলির এই প্রকল্পের টাকা পাওয়ার জন্য এবার থেকে ওষুধের রশিদ দেখাতে হবে। কোন গন্ডগোল দেখা গেলে স্বাস্থ্য দপ্তর সাথে সাথে কড়া ব্যবস্থা নেবে।

    কি রয়েছে নতুন অ্যাডভাইসারি তে?

    অনেক সময় দেখা গেছে বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিং হোম গুলি রোগীকে কম পয়সার ওষুধ দিয়ে সরকারের কাছে বেশি টাকা আদায় করে। এই অনিয়ম রুখতেই সরকারের নতুন অ্যাডভাইসারি। শুধু তাই নয়, কোন রোগীকে যদি দামি অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয় তাহলে কেন সেই অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়েছে কারণ বিস্তারিত পাঠাতে হবে স্বাস্থ্য দপ্তর কে।

    Swasthya Sathi

    দুয়ারে সরকার শুরু হতে চলেছে আগামী 16 ই আগস্ট থেকে।

    রাজ্যে ফের আগামী 16 ই আগস্ট থেকে দুয়ারে সরকার শুরু হতে চলেছে। এই দুয়ারে সরকার কর্মসূচি চলবে 16 ই আগস্ট থেকে 17 সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এই দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে সাধারণ মানুষ পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত ধরনের প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবে। যার মধ্যে রয়েছে স্বাস্থ্য সাথী (Swasthya Sathi), খাদ্য সাথী, লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প, কৃষক বন্ধু সহ একাধিক প্রকল্প। নির্বাচনের আগে দুয়ারে সরকার কর্মসূচি জনমানসে যথেষ্ট সাড়া ফেলেছিল এবং তার ফল নির্বাচনে দেখা গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির এটি একটি মাস্টার স্ট্রোক বলা যেতে পারে।

    এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনের আগে ঘোষণা করে দেয় এবার থেকে সকল পরিবার স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুবিধা পাবে। এবং পরিবারপিছু 5 লক্ষ টাকা করে স্বাস্থ্যবীমা দেওয়া হবে।

    See also  মুড়ি ছাড়া বাঙালির খাদ্য তালিকা অসম্পূর্ণ! কিন্তু ৯৯% মানুষ জানেন না মুড়িকে ইংরেজিতে কী বলে

    • স্বাস্থ্য সাথী কার্ড হবে বাড়ির মহিলাদের নামে।

    প্রতিটি পরিবারের মহিলার নামে এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড ইস্যু হবে। মহিলার বাপের বাড়ির লোকেরাও এই প্রকল্পের সুবিধা পাবে। স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প তৃণমূল সরকারের একটি বড় মাস্টার স্ট্রোক। এছাড়াও নির্বাচনের আগে তৃণমূল সরকার জনসাধারণকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প দেওয়ার জন্য। যাতে রাজ্যের মহিলারা 500 টাকা ও 1000 টাকা করে পাবে। নির্বাচনে জেতার পর লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প ও আগামী 16 ই আগস্ট দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে আবেদন গ্রহন করা হবে।

    Swasthya Sathi

    পরিবারের মহিলারা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারবে এবং প্রতিমাসে জেনারেল কাস্ট এর মহিলারা 500 টাকা ও SC/ST কাস্টের মহিলারা 1000 টাকা করে পাবেন।

    স্বাস্থ্য সাথী বনাম  আয়ুষ্মান ভারত।

    নির্বাচনের পূর্বে বিজেপি রাজ্যে আয়ুষ্মান ভারত এর সুবিধা রাজ্যবাসীর না পাওয়ার জন্য তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে। বিজেপির নেতারা অভিযোগ তোলে তৃণমূল সরকার আয়ুষ্মান ভারত এর লাভ পশ্চিমবঙ্গবাসী কে নিতে দিচ্ছেনা। অন্যদিকে এর তৃণমূল সরকার পালটা জবাব দিয়ে বলে আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প শুধুমাত্র দুস্থ শ্রেণীর মানুষদের জন্যই। কিন্তু স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প সকল মানুষের জন্য। প্রথমে স্বাস্থ্য সাথী নিয়ে বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিং হোম গুলিতে গন্ডগোল শুরু হয়।

    অনেক ক্ষেত্রে এই সমস্ত হাসপাতাল ও নার্সিং হোম গুলি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর ভিত্তিতে রোগীদের নিতে প্রত্যাখ্যান করেছিল।তবে পরবর্তী ক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রীর কড়া নির্দেশ ও নতুন অ্যাডভাইসারি জারি করে সে সমস্ত বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিং হোম গুলিকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করা হচ্ছে।