Skip to content

অস্ট্রেলিয়ার গভীর সমুদ্রে মিলল আশ্চর্যজনক হাঙ্গর! বিজ্ঞানীরা বলছেন এলিয়েনের সঙ্গে রয়েছে যোগসূত্র

    সম্প্রতি ঘটে গেছে একটি আশ্চর্যজনক ঘটনা। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি হাঙ্গরকে ঘিরে আলোড়নের সৃষ্টি হয়েছে। মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে পড়েছে একটি ভয়ঙ্কর সামুদ্রিক হাঙ্গারের ছবি। একটি অস্ট্রেলিয়ান জেলে সোশ্যাল মিডিয়াতে এই সামুদ্রিক হাঙ্গরের ছবিটি শেয়ার করেছেন। যা দেখে দর্শকরা অবাক।  সিডনিতে বসবাসকারী ট্রাপম্যান বারমাগুই নামে এক জেলে ৬৫০ মিটার গভীরের হদিস পাওয়া একটি হাঙ্গরের ছবি শেয়ার করেছেন।

    Shark

    ছবিটি শেয়ার করা মাত্রই মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হতে শুরু করেছে। ছবিটিতেই এই বিশালাকৃতি হাঙ্গরটির শরীরের চোখ, মুখ, দাঁত স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে। ছবিটি শেয়ার করে ক্যাপশনে জেলেটি লিখেছিলেন, ” সমুদ্রের ৬৫০ মিটার গভীরতা থেকে চর্মযুক্ত এই হাঙ্গরটি উদ্ধার করা হয়েছে।” সোশ্যাল মিডিয়ায় হাঙ্গামারটির ছবি দেখা মাত্রই প্রত্যেক নেটিজেনরা অনেক মন্তব্য করেছেন।

    Shark

    সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী একজন মন্তব্য করেছেন, ” মনে হচ্ছে এই প্রাগৈতিহাসিক প্রাণীটি সমুদ্রের নিচের অন্য কোন গ্রহ থেকে আগত হয়েছে। এটি সম্পূর্ণ একটি বন্য চেহারার প্রাণী।” আরও এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ” এটি কোন হাঙ্গর নন অপরন্ত এটি মানুষের তৈরি একটি ভাস্কর বা ক্রিসপারের সাহায্য নিয়ে ডিএনএর সংমিশ্রণ বলা যায়।”

    আরও এক ব্যবহারকারী মন্তব্য করেছেন, “এই ছবিটিতে তার চোখ চেহারার বর্ণনা দেখে সত্যিই ভীষণ অবাক লাগছে।” অনেকের মধ্যে এই হাঙ্গরটি ‘কুকি-কাটার’ হাঙ্গর নামে পরিচিত। সিগার আকৃতি সম্পন্ন এই হাঙ্গরের মুখে স্বতন্ত্র ঠোঁট বর্তমান।

    Shark teeth

    এতসব মন্তব্যের পর এবার মুখ খুললেন ট্রাপম্যান বারমাগুই। একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, “এই বিশালাকৃতি সামুদ্রিক প্রাণীটি একটি রুক্ষময় চামড়াযুক্ত হাঙ্গর, যা কুকুর হাঙ্গরের একটি প্রজাতি হিসেবে পরিচিত।” এই হাঙ্গরগুলি শীতকালে ধরতে বেশি সুবিধা হয়। হাঙ্গরটির চোখ দুটো দেখতে পুরো এলিয়েনদের মতো আর অদ্ভুত লালচে ধরনের দেখতে তার চোয়াল। এই হাঙ্গরদের বলা ডিপ-সি হাঙ্গর। ১৫ কেজি ওজনের এই ৫ ফুট দৈর্ঘ্য সম্পন্ন হাঙ্গরটি দেখে সকলেই বিস্ময় হয়েছেন।