পাকিস্তানে গুপ্তচর হিসাবে থাকাকালীন অজিত ডোভাল কে ধরে ফেলেছিলেন এক মৌলানা, তারপর তিনি যা করেছিলেন

Loading...

কোন দেশ বা সাম্রাজ্যকে বাহ্যিক শত্রুর হাত থেকে রক্ষার জন্য গুপ্তচরদের ভূমিকা অপরিসীম। আমরা প্রাচীন যুগের নানা গল্প কাহিনীতে নানা গুপ্তচরের সম্বন্ধে জানতে পারি। বহুকাল আগে রাজ রাজারা তাঁদের সাম্রাজ্য রক্ষা করার জন্য গুপ্তচরদের ব্যবহার করতেন। আসুন আজ আমরা আমাদের দেশের এক গুপ্তচরের কাহিনী সম্বন্ধে জানব।গুপ্তচর কথাটি আরেক পরিভাষা হলো গোয়েন্দা (detective/Spy)। আমাদের দেশের একজন অতি মহান সাহসী গুপ্তচর অর্থাৎ গোয়েন্দা এজেন্ট হলেন অজিত ডোভাল (Ajit doval)।

 

আপনারা অনেকেই হয়ত এনার সম্বন্ধে জানেন না, তবে পাকিস্তানের এক এক কট্টরপন্থী রা এনার নাম শুনলে ভয়ে কাপে। কারণ অজিত ডোভাল এমন এক গোয়েন্দা যিনি পাকিস্তানে প্রায় সাত বছর গুপ্তচর হিসেবে কাটিয়েছেন। তিনি সেখানে মুসলমান সেজে সাত বছরের মতো দীর্ঘ সময় কাটিয়েছিলেন। ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ পরামর্শদাতা হলেন অজিত ডোভাল। ইনি সাত বছর পাকিস্তানের কাটিয়ে সেখানকার নানা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ভারতে পাঠিয়েছেন।

Loading...

অজিত ডোভাল

Loading...

 

Ajit doval

ভারতের সুরক্ষা রক্ষায় গোয়েন্দা অজিত ডোভাল এর গুরুত্ব অপরিসীম। একদিন গোয়েন্দা অজিত দোভাল কে প্রশ্ন করা হয় যে, এতদিন তিনি পাকিস্তানে মুসলমান সেজে ছিলেন যদিও তিনি হিন্দু তো এই বিষয়ে তাকে কোন ধর্ম সংকটে পড়তে হয়নি? তখন অজিত দোভাল একটি আশ্চর্য কাহিনী শোনান । অজিত ডোভাল উত্তরে বলেন, “আমি যখন পাকিস্তানের লাহোর এর মসজিদ থেকে বের হচ্ছিলাম তখন আমাকে একজন দাড়িওয়ালা ব্যক্তি যাকে দেখে মুসলিম ফকির মনে হচ্ছিল সে আমাকে বলে ওঠে আমি একজন হিন্দু।

অজিত ডোভাল

Loading...

(Ajit doval)

তখন আমি অবাক হয়ে যাই। আমি হতভম্ব হয়ে পড়লেও নিজেকে সামলে নি। তারপর সেই ব্যক্তি বলে, তোমার কানের ফুটো দেখে আমি বুঝে নিয়েছি তুমি একজন হিন্দু।”তারপর সেই ব্যক্তি অজিত দোভাল কে তার কানের ফুটোতে প্লাস্টিক সার্জারি করিয়ে নিতে উপদেশ দেন। এখন প্রশ্ন কে ছিলেন ওই ব্যক্তি। অজিত ডোভাল বলেন, “ওই ব্যক্তিটি আমাকে একটি রুমে নিয়ে গিয়ে বলেন আমি ও একজন হিন্দু, এবং পাকিস্তানী কট্টরপন্থীরা আমার পরিবারকে হত্যা করেছে। তাই নিজের প্রাণ রক্ষা করার জন্য এখানে আমি মুসলিম ফকির হয়ে থাকি।

Loading...

অজিত দোভাল

 

এবং এখানকার মানুষ ও আমাকে মুসলমান ফকির ভাবে।” তারপরে মুসলমান ফকির রুপি হিন্দু ব্যক্তিটি অজিত দোভাল কে নিয়ে গিয়ে শিব দুর্গার মূর্তি দেখান যেগুলি সে ব্যক্তিটি পূজা করতেন। অজিত ডোভাল জানান দীর্ঘ সাত বছর পাকিস্তানে থাকলেও কেবলমাত্র এই হিন্দু ব্যক্তিটি ছাড়া কেউ তাকে চিনতে পারেনি।